Home /News /education-career /
Class 11 Admission: একাদশ শ্রেণিতে একটি স্কুলে সর্বাধিক পড়ুয়া ভর্তির সংখ্যা ২৭৫ থেকে বেড়ে ৪০০! ঘোষণা রাজ্যের

Class 11 Admission: একাদশ শ্রেণিতে একটি স্কুলে সর্বাধিক পড়ুয়া ভর্তির সংখ্যা ২৭৫ থেকে বেড়ে ৪০০! ঘোষণা রাজ্যের

Class 11 Admission: স্পষ্টত পড়ুয়া ভর্তির পরিমাণ অনেকটা বৃদ্ধি হওয়ায় আশায় রয়েছেন অভিভাবকরাও।

  • Share this:

#কলকাতা: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের। প্রতিটি স্কুলে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য বাড়ানো হল আসন সংখ্যা। সর্বাধিক এক একটি স্কুলে একাদশ শ্রেণিতে ৪০০ জন ছাত্রছাত্রী ভর্তি করানো যাবে। আগে সেই সংখ্যা ছিল ২৭৫ জন। এ ছাড়াও কাউন্সিলের পক্ষ থেকে নোটিশ জারি করে বলা হয়েছে, কেউ যদি উচ্চমাধ্যমিক স্তরে অঙ্ক নিয়ে পড়াশোনা করতে চায়, তা হলে তাকে ৩৫ শতাংশ নম্বর পেতে হবে মাধ্যমিক স্তরের অঙ্কে। এছাড়া যদি কেউ জীববিদ্যা বিষয়ে পড়াশোনা করতে চায়, তা হলে মাধ্যমিক স্তরের জীবন বিজ্ঞানে তাকে পেতে হবে ৩৫ শতাংশ। পদার্থবিদ্যা ও রসায়নে যদি কেউ উচ্চমাধ্যমিক স্তরে পড়াশোনা করতে চায়, তা হলে মাধ্যমিক স্তরে তাকে ভৌত বিজ্ঞানে পেতে হবে ৩৫ শতাংশ নম্বর। মাধ্যমিকে ভুগোলে ৩৫ শতাংশ নম্বর পেলে তবেই উচ্চমাধ্যমিকে ভুগোল নেওয়া যাবে আর অঙ্কে ৩৫ শতাংশ নম্বর থাকলে নেওয়া যাবে কম্পিউটার সায়েন্স।

আরও পড়ুন: SSC মামলা থেকে সরলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়, প্রাথমিকে আশার আলো, কিন্তু কেন?

মাধ্যমিকের ফল প্রকাশিত হয়েছে। বিভিন্ন জেলায় উল্লেখযোগ্য ভাল ফল এ বারও তাক লাগিয়ে দিয়েছে। তবে জীবনের প্রথম পরীক্ষার পর এখন পড়াশোনা কোন বিভাগে এগবে, তাই নিয়ে ভাবনায় রয়েছে পড়ুয়ারা, চিন্তায় রয়েছেন অভিভাকরাও। একাদশে ভর্তি নিয়ে এখন চলছে চিন্তা ভাবনা। তার মধ্যেই এ বার নতুন করে একটি নির্দেশিকা জারি করা হল রাজ্যের উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা কাউন্সিলের পক্ষ থেকে। সেখানে স্পষ্টত পড়ুয়া ভর্তির পরিমাণ অনেকটা বৃদ্ধি হওয়ায় আশায় রয়েছেন অভিভাবকরাও। হয়ত এর ফলে অনেকেই পছন্দের স্কুলে পছন্দের বিষয় নিয়ে ভর্তি হতে পারবে, পাশাপাশি, অনেক পড়ুয়াই ভর্তি হওয়ার সুযোগ না পাওয়ার আশঙ্কায় ভুগছিল, তাঁরাও কোথাও কোথাও পড়াশোনা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার সুবিধা পাবে।

আরও পড়ুন: ফলাফলে খুশি নয়, খাতা পুনর্মূল্যায়ন করতে চায় মাধ্যমিকে নবম সৌরথ দে

মাধ্যমিকের ফলে দেখা গিয়েছে, এ বারে মেধাতালিকায় শীর্ষে রয়েছে ২ জন। বাঁকুড়ার রামহরিপুর রামকৃষ্ণ মিশন হাই স্কুলের অর্ণব ঘড়াই। আর বর্ধমান সিএমএস স্কুলের রৌণক মণ্ডল। দু’জনের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯৩। ৬৯২ নম্বর পেয়ে যুগ্ম দ্বিতীয় হয়েছে মালদহের কৌশিকী সরকার এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের রৌনক মণ্ডল। ৬৯১ নম্বর পেয়ে যুগ্ম তৃতীয় হয়েছে পশ্চিম বর্ধমানের অনন্যা দাশগুপ্ত এবং পূর্ব মেদিনীপুরের দেবশিখা প্রধান। সামগ্রিক ভাবে রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাশের হার ৮৬.৬০ শতাংশ।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Madhyamik

পরবর্তী খবর