Job news: অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ও প্রিন্সিপ্যাল পদে নিয়োগে ভাইভা বাতিল, এটাই কি নিয়ম হয়ে গেল? জানুন বিশদে

শুধুমাত্র লিখিত পরীক্ষার ভিত্তিতে তাঁদের নিয়োগ করা হবে। কোনও রকম ভাইবা বা মৌখিক ইন্টারভিউ পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে তাদের যেতে হবে না।

শুধুমাত্র লিখিত পরীক্ষার ভিত্তিতে তাঁদের নিয়োগ করা হবে। কোনও রকম ভাইবা বা মৌখিক ইন্টারভিউ পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে তাদের যেতে হবে না।

  • Share this:

বেঙ্গালুরু: অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর (Assistant Professors) ও প্রিন্সিপাল (Principals) নিয়োগের ক্ষেত্রে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে এল কর্নাটক সরকার। আগে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে নিয়োগের জন্য লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হত। তাতে উত্তীর্ণ হলে তার পর সেই প্রার্থীর ইন্টারভিউ নেওয়া হত। কিন্তু নতুন নিয়মে লিখিত পরীক্ষার পর আর কোনও ইন্টারভিউ নেওয়া হবে না। অর্থাৎ বাতিল করা হয়েছে ভাইভা টেস্ট। এই কথা ঘোষণা করেছেন কর্নাটকের ডেপুটি চিফ মিনিস্টার বা উপ মুখ্যমন্ত্রী ড. সি এস অশ্বথ নায়ায়ণ (Dr C N Ashwath Narayan)। গতকাল তিনি এই ঘোষণা করেন।

এর সঙ্গে সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন এক হাজার দু-শো বিয়াল্লিশ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসার নিয়োগ করা হবে এবং এরই সঙ্গে ৩১০ জন প্রিন্সিপাল নিয়োগ করা হবে। পুরো নিয়োগ প্রক্রিয়া হবে নতুন নিয়ম অনুসারে। অর্থাৎ শুধুমাত্র লিখিত পরীক্ষার ভিত্তিতে তাঁদের নিয়োগ করা হবে। কোনও রকম ভাইবা বা মৌখিক ইন্টারভিউ পদ্ধতির মধ্যে দিয়ে তাদের যেতে হবে না।

এপ্রসঙ্গে উপ মুখ্যমন্ত্রী ড. সি এন অশ্বত্থ নারায়ণ বলেছেন, “লিখিত পরীক্ষার ভিত্তিতে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ও প্রিন্সিপাল পদের জন্য নিয়োগপত্র দেওয়া হবে। সেখানে কোনও ইন্টারভিউ বা ভাইভা পদ্ধতি নেওয়া হবে না। ২০০৯ সালের পর এই প্রথম প্রিন্সিপাল নিয়োগ করা হবে। এবং ২০১৭ সালের পর ফের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদের জন্য নিয়োগ করা হবে।”

অ্যাসিন্ট্যান্ট প্রফেসর পদের জন্য লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে ৫০০ নম্বরের। যেখানে মূলত অবজেকটিভ টাইপ প্রশ্ন থাকবে। যার মধ্যে ১০০ নম্বরের কন্নড় ভাষা, ১০০ নম্বরের ইংরেজি, ৫০ নম্বরের জেনারেল নলেজ এবং ২৫০ নম্বরের ঐচ্ছিক বিষয়ের প্রশ্ন থাকবে। এবং প্রিন্সিপাল পদের জন্য ১০০ নম্বরের অবজেকটিভ টাইপ প্রশ্ন থাকবে।

আগামী ২০ দিনের মধ্যে নিয়োগের বিজ্ঞাপন বের হবে। এবং আগামী ৬ মাসের মধ্যে পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

কর্নাটক একজামিনেশন অথরিটি (Karnataka Examination Authority) এই পরীক্ষাটি নেবে। পরীক্ষার সম্ভাব্য দিন চলতি বছরের অগস্ট মাসের ২৮ থেকে ৩০ তারিখ। প্রায় ৫০০টি সেন্টারে ওই পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: