Anganwadi Recruitment 2021: ক্লাস ১০ পাশ ও গ্র্যাজুয়েটদের পরীক্ষা না দিয়েই অঙ্গনওয়াড়ির নানা পদে বিপুল নিয়োগ, জানুন বিশদে!

Representational Image

যোগ্য এবং আগ্রহী মহিলা প্রার্থীদের পঞ্জাব অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীর জন্য sswcd.punjab.gov.in-তে দ্রুত আবেদন জানাতে হবে।

  • Share this:

#চণ্ডীগড়: আপনি কি অঙ্গনওয়াড়িতে চাকরি খুঁজছেন? তাহলে পঞ্জাব সরকার আপনার জন্য সুবর্ণ সুযোগ নিয়ে এসেছে। অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী (AWW), ক্ষুদ্র অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী (Mini Anganwadi Worker) এবং অঙ্গনওয়াড়ি হেল্পার (Anganwadi Helper) পদে নিয়োগ করতে চলেছে পঞ্জাব সরকার। সম্প্রতি ২০২১ সালের জন্য পঞ্জাবের মহিলা ও শিশু উন্নয়ন বিভাগে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছে।

যোগ্য এবং আগ্রহী মহিলা প্রার্থীদের পঞ্জাব অঙ্গনওয়াড়ি কর্মীর জন্য sswcd.punjab.gov.in-তে দ্রুত আবেদন জানাতে হবে।

মোট ৪৪৮১টি শূন্যপদে সংশ্লিষ্ট পদগুলিতে নিয়োগ করা হবে। যার মধ্যে ৩২২৯টি অঙ্গনওয়াড়ি হেল্পার পদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে। অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী পদের জন্য ১১৭০টি এবং ৮২টি ক্ষুদ্র অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী পদের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে।

অঙ্গনওয়াড়ি নিয়োগ ২০১১: গুরুত্বপূর্ণ তারিখগুলি জেনে নিন

আবেদন নেওয়া শুরু হবে ৩ জুন, ২০২১ তারিখ থেকে এবং প্রার্থীরা ৪ জুলাই, ২০২১ পর্যন্ত আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। সুপারভাইজার পদের জন্য আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ হল ৫ জুলাই, ২০২১। সুপারভাইজার পদের জন্য ৯ জুলাই, ২০২১ তারিখ পর্যন্ত ফি জমা দেওয়া যাবে।

প্রার্থীরা নির্দিষ্ট এই তারিখগুলো অবশ্যই মনে রাখবেন। সরকারের তরফে নির্ধারিত শেষ তারিখের পরে আবেদন নেওয়া হবে না।

যোগ্যতার মাপকাঠি:

অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী: প্রার্থীদের স্নাতক হতে হবে এবং শ্রেণী ১০ পর্যন্ত পঞ্জাবি ভাষা থাকতে হবে।

ক্ষুদ্র অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী: এই পদে যাঁরা আবেদন করবেন তাঁদের স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে এবং শ্রেণী ১০ পর্যন্ত পঞ্জাবি ভাষা পড়তে হবে।

অঙ্গনওয়াড়ি হেল্পার: প্রার্থীদের দশম শ্রেণী পাশ করতে হবে, সঙ্গে পঞ্জাবি ভাষার জ্ঞান থাকা আবশ্যক।

বয়সসীমা:

১৮ থেকে ৩৭ বছর বয়সের মধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা এই চাকরির জন্য আবেদন জানানোর সুযোগ পাবেন।

বেতন:

মনোনীত আবেদনকারীদের প্রতি মাসে ১০,০০০ টাকা থেকে ১৫,০০০ টাকা পর্যন্ত বেতন দেওয়া হবে।

নির্বাচন প্রক্রিয়া:

পঞ্জাবের মহিলা ও শিশু উন্নয়ন বিভাগে অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী পদে নিয়োগের জন্য প্রার্থী নির্বাচন মূলত বেশ কিছু বিষয়ের উপর নির্ভর করে হবে। প্রথমে শিক্ষাগত যোগ্যতার ভিত্তিতে প্রকাশিত হবে মেধা তালিকা। এর পর সেই তালিকা অনুযায়ী ইন্টারভিউ নেওয়া হবে এবং প্রার্থীদের নথিপত্র যাচাই করা হবে। পরবর্তী ধাপে উত্তীর্ণ হলে প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: