হোম /খবর /শিক্ষা /
ডিএলএড প্রশ্নপত্র নিয়ে বিতর্কের জের, উত্তরপত্র নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত পর্ষদের

d el ed: ডিএলএড প্রশ্নপত্র নিয়ে বিতর্কের জের, উত্তরপত্র নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত পর্ষদের

বড় সিদ্ধান্ত পর্ষদের

বড় সিদ্ধান্ত পর্ষদের

d el ed: ডিএলএড প্রশ্নপত্র নিয়ে বিতর্কের জের, উত্তর পত্র নিয়ে বিশেষ সতর্ক প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার d.el.ed এর উত্তরপত্র নিয়েও সতর্ক প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। উত্তরপত্র সংগ্রহ করার জন্য সরকারি আধিকারিককে কাজে লাগাতে চাইছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। উত্তরপত্রের নিরাপত্তা বজায় রাখার জন্য আগামীকাল সকাল সাড়ে দশটার মধ্যেই সাব-ইন্সপেক্টর অফ স্কুল ranker অফিসারদের প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ। এই সরকারি আধিকারিকই প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে উত্তরপত্র সংগ্রহ করে সরাসরি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের মূল অফিসে জমা দেবে। সারা রাজ্যজুড়ে এই নির্দেশিকাই কার্যকর হবে।

প্রশ্নপত্র বিতর্কের জেরে উত্তরপত্র নিয়ে বিতর্ক চায়না প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। তার জেরেই রাজ্যের প্রত্যেকটি জেলার স্কুল বিদ্যালয়ের পরিদর্শক কে এই নির্দেশ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের। আজ ই শেষ হয়েছে d.el.ed পরীক্ষা। আর তাই উত্তরপত্র নিয়েও এবার বিশেষভাবে সতর্ক থাকতে চাইছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। এতদিন যে নিয়মে উত্তরপত্র দেখা হতো এই ডি এল এড পরীক্ষার এবার সেই নিয়মও বদলে ফেলল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। পরীক্ষায় স্বচ্ছতা আনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত বলেই দাবি প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের আধিকারিকের।

অন্যদিকে ডি এল এড প্রশ্নপত্র নিয়ে বিতর্কের জেরে    দফায় দফায় ডি এল এড পরীক্ষা নিয়ে নির্দেশিকা বদল করছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। মঙ্গলবার ফের d.el.ed নিয়ে নির্দেশিকা বদল করল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। বদল করে জানালো, সকালে ১১:১৫ মিনিটের বদলে বুধবার প্রশ্ন পত্র সকাল ১১ টা ৩০ মিনিটে এর আগে ভেনুগুলিকে দেওয়া যাবে না। শুধু তাই নয়, সোমবার মধ্যরাতে নির্দেশিকা বদল করে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ মঙ্গলবার সন্ধ্যা বেলায় ফির নির্দেশিকা দিয়ে জানালো, জেলা প্রশাসনকে সরাসরি নজরদারি করতে হবে বুধবারের d.el.ed পরীক্ষা নিয়ে।

আরও পড়ুন: সিব্বলের জোর সওয়ালেও কাজ হল না, অনুব্রত মামলায় সময় পেয়ে গেল সিবিআই!

প্রসঙ্গত বুধবারই শেষ হচ্ছে d.el.ed পরীক্ষা। এই প্রথম নজিরবিহীনভাবে d.el.ed পরীক্ষায় রাজ্য প্রশাসনকে সরাসরি যুক্ত করা হচ্ছে। পাশাপাশি নির্দেশিকায় এও জানানো হয়েছে প্রশ্নপত্র নিয়ে যদি কোন অনিয়ম হয়ে থাকে তাহলে সংশ্লিষ্ট আধিকারিকের বিরুদ্ধে শাস্তি মূলক পদক্ষেপ করা হবে। আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হবে বলেও নির্দেশিকা জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

পর্ষদের নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে জেলাশাসক, পুলিশ সুপার - পুলিশ কমিশনারদের। মূলত ডিএলএড পরীক্ষা নিয়ে শেষ দিন যাতে কোন বিতর্ক বা অভিযোগ না ওঠে তার জন্য প্রশ্নপত্র দেওয়ার সময়সীমা কমিয়ে আনা হলো বলেই মনে করছে আধিকারিকদের একাংশ। প্রসঙ্গত মঙ্গলবার ই ডি এল এড পরীক্ষার প্রশ্নপত্র পরীক্ষার আগে কিভাবে সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হল তা নিয়ে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই সিআইডি গোটা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। সূত্রের খবর প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের আধিকারিকদের কাছ থেকেও সিআইডি বেশকিছু নথি চাইতে পারে।

আরও পড়ুন: ঘর খুলতেই মেঝেতে মেয়ের দেহ, বিছানায় জামাইয়ের! পাশে পড়ে পোড়া কাঠকয়লা, কিন্তু কেন?

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের আধিকারিকদের সঙ্গেও সিআইডির আধিকারিকরা কথা বলে গোটা বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করবেন বলেও সূত্রের খবর। এক্ষেত্রে পর্ষদ কোন কোন জায়গা গুলিকে চিহ্নিত করছে তা তদন্ত করার জন্য সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতামত নেওয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও সোমবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল দাবি করেছিলেন এটাকে কোনভাবেই প্রশ্ন ফাঁস বলা যায় না।

 তবে এদিন ডিএলএড পরীক্ষা নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি আধিকারিকদের সঙ্গে বলেই সূত্রের খবর। তবে এদিন ডিএলএফ প্রশ্নপত্র পরীক্ষার আগে বা পরীক্ষার পরেও কোনভাবেই সোশ্যাল সাইটে যায়নি বলেই দাবি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের আধিকারিকরা। সবমিলিয়ে পরীক্ষা শেষ দিনেও ডি এল এড পরীক্ষা কে কেন্দ্র করে কোন বিতর্ক চাইছে না পর্ষদ।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Primary Teacher, West Bengal news