Football World Cup 2018

দুর্গাপুর সিটি সেন্টারে এক বৃদ্ধের রহস্যজনক খুন ! তদন্তে নেমে কী জানতে পারল পুলিশ ?

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 18, 2017 06:11 PM IST
দুর্গাপুর সিটি সেন্টারে এক বৃদ্ধের রহস্যজনক খুন ! তদন্তে নেমে কী জানতে পারল পুলিশ ?
Representational Image
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 18, 2017 06:11 PM IST

#দুর্গাপুর: বৃহস্পতিবার রাতে দুর্গাপুর শহরের প্রাণকেন্দ্র সিটিসেন্টারে রহস্যজনকভাবে খুন হন এক বৃদ্ধ । তিনি এ-৩৯, অবনীন্দ্রনাথ বিথীর বাসিন্দা, নাম সত্যরঞ্জন খাঁড়া (৭২) । কেউ বা কারা তাঁকে মাথার পিছন দিকে আঘাত করে খুন করে । মাথার পিছনে গভীর আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ ।

প্রতিবেশীদের বয়ান অনুযায়ী, পাড়ায় কারোর সঙ্গেই খুব বেশি যোগাযোগ ছিল না বৃদ্ধের । মৃতের স্ত্রী বছর খানেক হল মারা গিয়েছেন । একমাত্র ছেলে সুমিত ওরফে বাপির পুরনো গাড়ি কেনাবেচার ব্যবসা আছে । সম্প্রতি চোরাই গাড়ি কেনাবেচার অপরাধে দুর্গাপুরের সি-জোন এলাকার ব্যবসায়ী মহ: সেলিম নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ । গ্রেফতারির সময়ে কোন এক বাপি তাকে ফাঁসিয়েছে বলেও জানায় সেলিম । পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, মৃতের ছেলে বাপি ওরফে সুমিতেরই নাম করেছিল সেলিম ।

সেলিম ধরা পড়ার পর থেকেই বাপি খাঁড়াও ঘরছাড়া ছিল । ফলে বৃদ্ধ সত্যরঞ্জনবাবু একাই থাকতেন । রাতে একজন শুধু শুতে আসত তাঁর বাড়ীতে । সেই ব্যক্তিই গতকাল রাতে এসে দেখে ডাইনিং টেবিলের নীচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন সত্যরঞ্জনবাবু । খবর দেওয়া হয় পুলিশে । পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায় । যে ব্যক্তি রাতে সত্যরঞ্জন বাবুর বাড়িতে শুতে আসত সেই ব্যক্তির নাম অভিনন্দন ঠাকুর । তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ ।

সুত্রের খবর মৃত সত্যরঞ্জন বাবু বিমা সংস্থায় চাকরি করতেন । পুলিশ তাঁর ঘরটি ইতিমধ্যেই সিল করে দিয়েছে । সিটিসেন্টারের মতো অভিজাত এলাকায় এই খুনের ঘটনায় স্বভাবতই চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে । শুক্রবার দুপুরের রান্নার জন্য পরিচারিকা সুচরিতা মন্ডল মৃত সত্যরঞ্জনবাবুর বাড়িতে এলে তাকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ ।

সত্যরঞ্জনবাবুর মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে আসানসোল জেলা হাসপাতালে । সেখানে মৃতের ছেলে সুমিত দাবি করে সে খুনের দিন দুর্গাপুরেই ছিল না, সে পশ্চিম মেদিনীপুরের এগরায় দেশের বাড়িতে গিয়েছিল । তার নাম কেন এই খুনের সঙ্গে জোড়া হচ্ছে সে বুঝতে পারছে না । পুলিশি তদন্তে সঠিক তথ্য জানা যাবে বলে দাবি মৃতের ছেলের ।

First published: 06:11:13 PM Nov 18, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर