৫ মাস পর AIIMS-এ থেকে আটক ভুয়ো ডাক্তার, চিকিৎসা শাস্ত্রে জ্ঞান দেখে তাজ্জব পুলিশরাই

Simli Raha | News18 Bangla
Updated:Apr 16, 2018 05:57 PM IST
৫ মাস পর AIIMS-এ থেকে আটক ভুয়ো ডাক্তার, চিকিৎসা শাস্ত্রে জ্ঞান দেখে তাজ্জব পুলিশরাই
Representational Image
Simli Raha | News18 Bangla
Updated:Apr 16, 2018 05:57 PM IST

#নয়াদিল্লি: গায়ে চিকিৎসকের ল্যাব অ্যাপ্রন ৷ গলায় স্টেথোস্কোপ ৷ চোখে-মুখে আত্মবিশ্বাসী ছাপ ৷ দিল্লির AIIMS-এ সিনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে রোজই দেখা যায় তাঁকে ৷ কিন্তু কে এই অল্পবয়সী যুবক ? অনেক সময়ই এই প্রশ্নটা ঘুরপাক খেত চিকিৎসক মহলে ৷ জিজ্ঞাসা করলে একেক সময় একেক রকম উত্তর মিলত ৷ অনেক সময় উত্তর আসত, তিনি জুনিয়র ডাক্তার, কখনও বলতেন মেডিক্যালে স্নাতকস্তরের ছাত্র ৷

ধীরে ধীরে বাড়ছিল সন্দেহ ৷ তবু AIIMS-এর মতো বিশাল প্রতিষ্ঠানে প্রায় দু’হাজার জুনিয়র ডাক্তারের ভিড়ের মধ্যে তাঁকে আলাদা করে শনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছিল না এতদিন ৷ অবশেষে রহস্য উদঘাটিত হল ৷ জানা গেল, আদতে বিহারের বাসিন্দা আদমান খুরাম চিকিৎসকই নন ৷ কোনও ডাক্তারি ডিগ্রিও নেই তাঁর ৷ মাস পাঁচেক পর অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন খুরাম ৷

আরও পড়ুন: বৃষ্টিতে ইতি, রাজ্যে বাড়বে গরম, চলবে লু

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানায়, খুরামের নামে কোনও পুলিশের রেকর্ড নেই ৷ তবে তাঁর কথাবার্তায় অনেক অসঙ্গতি রয়েছে ৷ কেন সে এমন কাজ করেছে জানতে চাওয়া হলে একেকবার একেক রকম উত্তর মিলেছে তাঁর কাছ থেকে ৷ চিকিৎসক না হয়েও ডাক্তারি শাস্ত্রে তাঁর জ্ঞান দেখে তাজ্জব বনে গিয়েছেন খোদ পুলিশই ৷ খুরম জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের সঙ্গে থাকতে তাঁর খুব ভাল লাগত ৷ শুধু তাই নয়, এই পেশাটাও তাঁর পছন্দের ৷ তাই সে এমন কাজ করেছে ৷ এমনকী সোশ্যাল মিডিয়াতেও চিকিৎসকের পোশাকে একাধিক ছবি আপলোড করেছে সে ৷

আরও পড়ুন:পঞ্চায়েত মামলার ভবিষ্যৎ হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের হাতেই, আজ কাটবে কি জট?

বহুদিন ধরেই খুরমের কথাবার্তা, চালচলনে তাঁর উপর সন্দেহ বাড়ছিল চিকিৎসকদের ৷ তাঁকে হাতেনাতে ধরতে তক্কেতক্কে ছিলেন সকলেই ৷ অবশেষে খুরমকে সামনে বসিয়ে সকলে মিলে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই আসল সত্যিটা বেরিয়ে পড়ে ৷ এরপরেই আদমানকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় ৷

First published: 02:39:24 PM Apr 16, 2018
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर