গালিগালাজ, মারধরের পাল্টা অভিযোগ ! মডেলের বিরুদ্ধে মামলা করলেন Zomato ডেলিভারি বয়

গালিগালাজ, মারধরের পাল্টা অভিযোগ ! মডেলের বিরুদ্ধে মামলা করলেন Zomato ডেলিভারি বয়

হিতেশা চন্দ্রানীর বিরুদ্ধে সোমবার ব্যাঙ্গালুরু ইলেকট্রনিক সিটি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ডেলিভারি এক্সিকিউটিভ কামরাজ।

হিতেশা চন্দ্রানীর বিরুদ্ধে সোমবার ব্যাঙ্গালুরু ইলেকট্রনিক সিটি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ডেলিভারি এক্সিকিউটিভ কামরাজ।

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু : জোম্যাটো ডেলিভারি এক্সিকিউটিভের বিরুদ্ধে ঘুসি মারার অভিযোগে মামলা করেছিলেন বেঙ্গালুরুর মডেল তথা হেয়ার ড্রেসার হিতেশা চন্দ্রাণী। এবার তাঁর বিরুদ্ধেই পাল্টা মামলা করলেন অভিযুক্ত ডেলিভারি বয়,  কামরাজ। ওই ব্যক্তি পুলিশকে জানিয়েছেন, "মহিলা নিজেই অর্ডার ক্যানসেল করে দেন। এরপর আমাকে খাবারটা ফিরিয়ে নিয়ে যেতে বলা হয়। আমি মহিলার কাছে পার্সেল ফেরত চাই। উল্টে উনি আমাকে অভব্য গালিগালাজ শুরু করেন।"এমনকি কামরাজকে চন্দ্রানী পায়ের চটি খুলে মারধর করেন বলেও অভিযোগ তাঁর।

    হিতেশা চন্দ্রানীর বিরুদ্ধে সোমবার ব্যাঙ্গালুরু ইলেকট্রনিক সিটি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ডেলিভারি এক্সিকিউটিভ কামরাজ। মহিলার বিরুদ্ধে ৩৫৫ নম্বর (অপরাধজনক বলপ্রয়োগ) ও ৫০৬ (অপরাধী বানানোর ভীতি প্রদর্শন) নম্বর ধারায় অভিযোগ নথিভুক্ত করা হয়েছে।

    ঘটনাটি ঘটে গত ১০ মার্চ। জোম্যাটোর ডেলিভারি এক্সিকিউটিভের বিরুদ্ধে ঘুসি মেরে তাঁর নাক ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করেন ব্যাঙ্গালুরুর ওই মডেল। একের পর এক মোবাইল ভিডিও ক্লিপিংস পোস্ট করে তাঁর রক্তাক্ত অবস্থা শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাঁর পোস্ট এ চন্দ্রানী লেখেন, "দুপুর ৩.৩০ নাগাদ অর্ডার করেছিলাম। আসে ৪.৩০-এ। দেরি হওয়া নিয়ে প্রশ্ন করলেই অভব্য আচরণ করতে থাকেন ডেলিভারি বয়। আমি ওঁকে বলি খাবার ফ্রি-তে দেওয়া হোক, নয়তো ফেরত নিয়ে যাওয়া হোক। এরপরেই হঠাৎ আমায় ঘুসি মারেন ওই ডেলিভারি বয়। "

    অল্প সময়েই ভাইরাল হয়ে যায় তাঁর সেই ভিডিয়ো। গোটা দেশের নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়া দেখা যায় ভিডিওর কমেন্ট বক্সে। এমনকি পরিণীতি চোপড়ার মত বলিউড অভিনেত্রীও ঘটনার সমালোচনায় সোচ্চার হন। জোম্যাটোর পক্ষ থেকে ওই ডেলিভারি বয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এরপরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হন কামরাজ। পাল্টা অভিযোগ নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন। তাঁর অভিযোগে কামরাজ বলেন, "আমাকে উনি মারতে শুরু করেন। আমি খালি হাত দিয়ে আটকাচ্ছিলাম। আমি ওনার হাত সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করি। সেই সময়ে তাঁর নিজের হাতের আংটিই গিয়ে লাগে তাঁর নাকে। এভাবেই নাক ফেটে রক্ত বের হতে শুরু করে।"

    অন্য দিকে, জোম্যাটোর তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, ডেলিভারি বয় এবং চন্দ্রাণী দু’পক্ষের বিবৃতিকেই তাঁরা গুরুত্ব দিচ্ছেন। দু’পক্ষের বয়ানের ভিত্তিতে প্রকৃত ঘটনা সামনে আসুক, সেটাও চান তাঁরা।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: