• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • পরিবারের চাপে ধর্ষিতাকে বিয়ে, পরে সন্তানকে বিক্রি ২৫ হাজার টাকায়

পরিবারের চাপে ধর্ষিতাকে বিয়ে, পরে সন্তানকে বিক্রি ২৫ হাজার টাকায়

দু’বছর আগে ২০১৪ সালে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর পরিবারের চাপে ধর্ষককেই বিয়ে করতে বাধ্য করা হয় নিযাতিতাকে ৷

দু’বছর আগে ২০১৪ সালে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর পরিবারের চাপে ধর্ষককেই বিয়ে করতে বাধ্য করা হয় নিযাতিতাকে ৷

দু’বছর আগে ২০১৪ সালে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর পরিবারের চাপে ধর্ষককেই বিয়ে করতে বাধ্য করা হয় নিযাতিতাকে ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #বরেলি: দু’বছর আগে ২০১৪ সালে ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর পরিবারের চাপে ধর্ষককেই বিয়ে করতে বাধ্য করা হয় নিযাতিতাকে ৷ বিয়ের পর তাদের একটি সন্তানও হয় ৷ কিন্তু তার স্বামী মাত্র ২৫ হাজার টাকার বদলে নিঃসন্তান এক দম্পতিকে তাদের সন্তানকে বিক্রি করে দেয় ৷ উত্তরপ্রদেশের বরেলিতে এমনই অভিযোগ জানিয়েছেন বছর ২৫-এর এক মহিলার ৷ বরেলি থানার এসএসপি জানিয়েছেন, নিজের সন্তানকে ফিরে পেতে ও স্বামীর উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়ে থানায় অভিযোগ জানিয়েছে ৷ ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল আশুতোষ কুমার জানান, ‘ধর্ষিতা যে অভিযোগ জানিয়েছে তা অত্যন্ত গুরুতর ৷ মহিলা সার্কেল অফিসারকে এই তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হবে যাতে ঘটনার সমস্ত দিকে বিবেচনা করে তদন্ত করা হয় ৷’ মহিলা তার বয়ানে জানিয়েছেন, ‘পুরো বিষটি শুর হয় ২০১৩ সালে ৷ সেই বছর অভিযুক্ত শাহভেজের সঙ্গে কর্মসূত্রে তার আলাপ হয় ৷ তারপর তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে ৷ বিয়ের প্রতিশেরুতি দিয়ে তাদের মধ্যে শ্রীরিক সম্পর্কও স্থাপন করা হয় ৷ এরপর তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে মহিলা ৷ কিন্তু মহিলা তা শাহভেজকে জানাতে তিনি নির্যাতিতাকে হুমকি দেন এই বিষয়টি গোপন রাখার জন্য ৷’ এরপর ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই সমাজ ও পরিবারের চাপে পরে শাহভেজ বাধ্য হয় নির্যাতিতাকে বিয়ে করতে ৷ কিন্তু পরে তাদের কন্যাসন্তাকে টাকার বদলে বিক্রি করে দেয় শাহভেজ ৷ নির্যাতিতা জানান, এরপর শাহভেজকে তাকে ডির্ভোস দিয়ে দেন এবং অন্য এক ব্যক্তি যিনি সাত সন্তানের বাবা তার সঙ্গে বিয়ে করতে বলেন ৷ কিন্তু তিনি কোনক্রমে সেখান থেকে পালিয়ে আসেন ৷

    First published: