Home /News /crime /
যোগীরাজ্য মাদক খাইয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ! ৮০০ কিলোমিটার দূরে এসে অভিযোগ জানালেন তরুণী

যোগীরাজ্য মাদক খাইয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ! ৮০০ কিলোমিটার দূরে এসে অভিযোগ জানালেন তরুণী

নির্যাতিতার পরিবারের ওই ফোন নম্বরটি তাঁর দাদার নামে নথিভুক্ত৷ ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত দু'টি নম্বরের মধ্যে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা কথা হয়েছে৷ প্রতীকী চিত্র।

নির্যাতিতার পরিবারের ওই ফোন নম্বরটি তাঁর দাদার নামে নথিভুক্ত৷ ২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে চলতি বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত দু'টি নম্বরের মধ্যে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা কথা হয়েছে৷ প্রতীকী চিত্র।

৮০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এসে ধর্ষণের অভিযোগ জানালেন ২২ বছর বয়সি এক নেপালি তরুণী।

  • Share this:

    #লখনউ: লখনউ থেকে মহারাষ্ট্রের নাগপুর। রাস্তার হিসেবে ধরলে ৮০০ কিলোমিটার। হ্যাঁ, ৮০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এসে ধর্ষণের অভিযোগ জানালেন ২২ বছর বয়সি এক নেপালি তরুণী।

    অভিযোগ ধর্ষক তাঁকে পুলিশি যোগাযোগের ভয় দেখিয়ে এফআইআর করা থেকে বিরত রেখেছিল। রীতিমতো পালিয়ে নাগপুর আসেন চিনি। সেখানে তাঁকে সাহায্য করে তারই এক বন্ধু। প্রাথমিক ভাবে জিরো এফআইআর দায়ের করেন তিনি।

    জিরো এফআইআর কী? যে কোনও ধর্ষিতাই ন্যূনতম তথ্য-সহ সবচেয়ে নিকটবর্তী থানায় ধর্ষণের অভিযোগ ধায়ের করতে পারেন। পরে তাঁর সংশ্লিষ্ট পুলিশ স্টেশনে সেই মামলা স্থানান্তরিত হয়।

    মহিলার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে নেপাল থেকে ভারতে কাজ করতে আসেন। এক মহিলার সঙ্গে তিনি বাড়ি ভাড়া করে থাকতেন। মার্চ মাসের পরে ফইজাবাদ রোডের কাজে একটি বাড়িতে উঠে আসেন। সেই মহিলাই প্রবীন রাজপাল যাদব নামক দুবাই নিবাসী এক ব্যক্তির সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেন।

    পাশাপাশি ঘরে দীর্ঘদিন ধরে থাকা ওই মহিলার থেকে দেড় লক্ষটাকা পেতেন ওই নেপালি তরুণী। সেই টাকা চাইতেই শুরু হয় বিতণ্ডা। তাঁকে বেধড়ক মারধোর করে ওই মহিলা।

    পরে প্রবীণ রাজপাল যাদবকে জানানোয় তিনি একটি হোটেলে উঠতে বলেন এই নেপালি তরুণীকে। নিজেও চলে আসেন দুবাই থেকে। সেখানেই চলে পালা করে ধর্ষণ।

    মাদক খাইয়ে ধর্ষণ করা হয় বলেও অভিযোগ। তোলা হয় অশ্লীল ছবি। থানায় গেলেই সেই ছবি ভাইরাল করে দেওয়া হয়। প্রাণ ভয়ে রাতারাতি এই তরুণী পালিয়ে আসেন নাগপুর। সেখানেই কোরাডি পুলিশ স্টেশনে প্রাথমিক এফআইআর দায়ের হয়। রবিবার রাতেই নাগপুর পুলিশের একটি দল ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    Tags: Rape

    পরবর্তী খবর