Wife murders husband in Pune: প্রেমিকের সঙ্গে মিলে স্বামীকে খুন স্ত্রীর, করোনার ঘাড়ে দোষ চাপিয়েও হল না শেষ রক্ষা

প্রতীকী ছবি৷

স্বামীর মৃত্যুর দায় করোনার (Coronavirus) উপরেই চাপিয়েছিল স্ত্রী৷ তবে শেষরক্ষা অবশ্য হয়নি, পুলিশি তদন্তে সামনে এসেছে আসল সত্য৷

  • Share this:

    #পুণে: দুধের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিলিয়ে প্রথমে স্বামীকে অচেতন করেছিল স্ত্রী৷ তার পর প্রেমিকের সঙ্গে মিলে স্বামীকে শ্বাসরোধ করে খুন করেছিল বছর ঊনিশের তরুণী৷ খুনের পর অবশ্য স্বামীর মৃত্যুর দায় করোনার উপরেই চাপিয়েছিল স্ত্রী৷ তবে শেষরক্ষা অবশ্য হয়নি, পুলিশি তদন্তে সামনে এসেছে আসল সত্য৷

    পুণের এই ঘটনা সামনে আসতেই রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ জানা গিয়েছে, গত ২৪ মে পুণের উরুলি দেভাচি এলাকার বাড়িতেই ২৭ বছরের মনোহর নামদেও হান্ডের দেহ উদ্ধার হয়৷ তার স্ত্রী অশ্বিনী অবশ্য পুলিশের কাছে দাবি করেছিল, তার স্বামীর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল৷ মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই স্বামীর মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছিল অশ্বিনী৷

    ঘটনার তদন্তে নামে লোনি কালভর থানার পুলিশ৷ তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, মনোহর করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন একথা ঠিক৷ কিন্তু তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন৷ ফলে পুলিশের সন্দেহ আরও দৃঢ় হয়৷

    এর পরই অশ্বিনীর মোবাইল কল রেকর্ড খতিয়ে দেখে পুলিশ৷ কাদের সঙ্গে ওই তরুণী যোগাযোগ করেছিল, সেই তালিকা খতিয়ে দেখতে গিয়েই গৌরব সুতার নামে এক ব্যক্তির খোঁজ পান তদন্তকারীরা৷ দেখা যায়, গৌরবের সঙ্গে অশ্বিনীর শুধু নিয়মিত যোগাযোগই ছিল না, মনোহরের মৃত্যুর আগের দিন সে তাঁর বাড়িতেও এসেছিল৷

    তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, অশ্বিনীর সঙ্গে গৌরবের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল৷ আর সেই কারণেই দু' জনে মিলে মনোহরকে খুন করার ছক কষে৷ গৌরবই অশ্বিনীকে ঘুমের ওষুধও দেয়৷ সেই ওষুধ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে স্বামীকে খাইয়ে দেয় অশ্বিনী৷ মনোহর অচেতন হয়ে পড়তেই তাঁর শ্বাসরোধ করে খুন করে অশ্বিনী এবং তার প্রেমিক৷ পরে করোনায় মনোহরের মৃত্যুর গল্প সাজায় তাঁর স্ত্রী৷ শনিবারই মনোহরের স্ত্রী অশ্বিনী এবং তার প্রেমিক গৌরবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: