corona virus btn
corona virus btn
Loading

চতুর্থবার বিয়েতে অন্তরায় একমাত্র সন্তান! পথের কাঁটা সরাতে ৪ বছরের ছেলেকে পুকুরে ছুঁড়ে ফেলল মা!

চতুর্থবার বিয়েতে অন্তরায় একমাত্র সন্তান! পথের কাঁটা সরাতে  ৪ বছরের ছেলেকে পুকুরে ছুঁড়ে ফেলল মা!
প্রতীকী ছবি

২৩ বছর বয়সী খুনি মা ধর্মশীলা দেবীকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আদালতে পেশ করা হলে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

  • Share this:

#পাটনা: চতুর্থবার বিয়েতে বসার একমাত্র অন্তরায় বোবা-আংশিক কানা চার বছরের ছেলে। পথের কাঁটা সরাতে তাই ছেলেকেই জলে ডুবিয়ে খুন করল মা!  শুক্রবার সাংঘাতিক নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের পাটনার হাসানপুর খান্দাহ এলাকায়। ২৩ বছর বয়সী খুনি মা ধর্মশীলা দেবীকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আদালতে পেশ করা হলে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

 ঠিক কী ঘটেছে? প্রাথমিক জেরায় ধর্মশীলা জানিয়েছে, তার প্রথমবার বিয়ে হয় বিহারের নালন্দার ভাদুয়ালের বাসিন্দা অরুণ চৌধুরীর সঙ্গে। জন্ম হয় সাজন কুমারের। কিন্তু মাত্র এক বছরের মধ্যেই ধর্মশীলা অরুণকে ছেড়ে দেয়। ছেলেকে নিয়ে বাপের বাড়ি চলে আসে। এরপর সে আবার বিয়ে করে। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই দ্বিতীয় স্বামী মারা যান। এরপর আবারও বিয়ে করে সে। তৃতীয় স্বামী মহেশ চৌধুরীও  মারা যায় ধর্মশীলার।

পুলিশকে সে জানিয়েছে, মাস দুয়েক আগে তাঁর তৃতীয় স্বামী মারা যায়। তারপরেই  সে আবার বিয়ে করবে বলে মনস্থির করে। কিন্তু সেখানে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় একমাত্র সন্তান সাজন। কোনও উপায় না পেয়ে 'পথের কাঁটা' সরাতে ধর্মশীলা ছেলেকে খুন করার মতো চূড়ান্ত  সিদ্ধান্ত নেয়। সেই কারণেই সম্ভবত বৃহস্পতিবার রাতে ছেলেকে স্থানীয় জলাশয়ে ফেলে দেয় সে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে গ্রামবাসীরা পুকুরে শিশুর দেহ ভেসে থাকতে দেখতে পান। খবর দেওয়া হয় স্থানীয় থানায়। পুলিশ এসে দেহ উদ্ধারের পরে দেহ শনাক্ত করেন গ্রামবাসীরা। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখে ভেঙে পড়ে ধর্মশীলা। ধর্মশীলা জানিয়েছে, হবু স্বামী এবং সে মিলেই ছেলে খুন করার সিদ্ধান্ত নেয়। তদন্তে নেমে পুলিশ সাজনের বাবা অর্থাৎ ধর্মশীলার প্রথম্পক্ষের স্বামীকে শনাক্ত করে। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেফতার করা হয় খুনি মা-কে। অরুণের বয়ান রেকর্ড করেছে পুলিশ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: September 27, 2020, 8:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर