• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • UNNATURAL DEATH OF HOSEWIFE HUSBAND AND MOTHER IN LAW ARRESTED DD

বউকে বাপের বাড়ি গিয়ে বেধড়ক মার দিল স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোক, তারপর...

Unnatural death of hosewife husband and mother in law arrested

বিয়ের ছয় বছর পরেও পণের চাহিদার শেষ ছিল না৷

  • Share this:

#রায়গঞ্জ:  এক গৃহবধুর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয় রায়গঞ্জ থানার গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের নরম কলোনী গ্রাম। মৃতার পরিবারের অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকেরা শ্বাসরোধ করে খুন করেছে। এই ঘটনার পর মৃতার বাড়ির লোকেরা শাশুড়িকে সামনে পেয়ে মারধর করে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে স্বামী এবং শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে। গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে মৃতার বাবা স্বামী সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ গভর্নমেন্ট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

জানা গিয়েছে, ছয় বছর আগে রায়গঞ্জ থানার বিমল দাসের মেয়ে মিনতি দাসের সঙ্গে মালদহ জেলার চাঁচল এলাকার বাকিপুর গ্রামের বাসিন্দা গনপতি দাসের ছেলে সাধন দাসের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল।অভিযোগ বিয়ের দেড় বছর যেতে না যেতেই মিনতি দাসের উপর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা পণের টাকার দাবিতে গৃহবধূর উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করত।  গত এক মাস ধরে মিনতি তার বাপের বাড়িতে থাকত। চলতি মাসের ৮ জুলাই স্বামী সাধন দাস পরিবারের লোকেরা এসে গৃহবধূকে মারধর করে পালিয়ে যায়। গুরুতর জখম অবস্থায় মিনতিকে রায়গঞ্জ গর্ভামেন্ট মেডিকেল ও হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ৯ তারিখ রাতে মিনতিদেবীর মৃত্যু হয়। শনিবার সকালে চাঁচল থেকে স্বামী সহ মিনতির শ্বশুরবাড়ি লোকেরা মৃত গৃহবধূকে দেখতে আসেন। তাদের দেখতে পেয়ে মৃত মিনতিদেবীর প্রতিবেশীরা  ক্ষিপ্ত হয়ে  মিনতির শাশুড়িকে মারধোর করে বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশ এসে স্বামী স্বাধন দাস ও শাশুড়ি মমতা দাসকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

এই ঘটনায় মিনতির বাবা বিমল দাস স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ি ছয়জনের বিরুদ্ধে  রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। মৃতদেহটি ময়না তদন্তের জন্য রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। অভিযুক্ত মৃতার স্বামী সাধন দাস মারধোরের কথা অস্বীকার করে বলেন স্ত্রী অসুস্থ হবার খবর পেয়ে তাকে রায়গঞ্জ থেকে চাঁচলে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।সেখানে চিকিৎসা করে আবার রায়গঞ্জে রেখে যাওয়া হয়েছিল। গতকাল রাতে স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শ্বশুর বাড়ির লোকেরা জানায়।তার এক আত্মীয় এই খবর জানায়।খবর পেয়ে আজ সকালে চাঁচল থেকে তারা এসেছেন। শ্বশুড়বাড়ির লোকেরা তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করছে তা ঠিক নয় বলে সাধনবাবু দাবি করেছেন।স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যার প্রতিনিধি সুব্রত দাস জানান, মৃতার পরিবারের পক্ষ থেকে ঘটনাটি জানতে পারেন। মৃত্যুর ঘটনায় যারাই যুক্ত থাকুক তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published: