Crime: সম্পত্তির ভাগ পাবে না জেনে মা-বাবাকে খুন করল বেকার ছেলে, সঙ্গী স্ত্রী ও স্বপুত্র!

প্রতীকী ছবি।

ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার পটনার রামকৃষ্ণনগর পুলিশ স্টেশনের কাছে শিবাজি চৌক এলাকায়। জানা গিয়েছে, বাবা-মা-কে খুন করতে ছেলেকে সাহায্য করেছে অভিযুক্তের স্ত্রী ও ছেলে।

  • Share this:

    #পটনা: ৭০ বছরের রিটায়ার্ড স্কুল টিচার বাবা এবং ৬৮ বছরের গৃহবধূ মা-কে খুন করল ৫০ বছরের বেকার ছেলে। অভিযোগ, বাবা-মা ছেলেকে সম্পত্তির ভাগ ও আর্থিক সহযোগিতা করতে বাধা দেওয়ার জেরেই তাঁদের খুন করেছে ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার পটনার রামকৃষ্ণনগর পুলিশ স্টেশনের কাছে শিবাজি চৌক এলাকায়। জানা গিয়েছে, বাবা-মা-কে খুন করতে ছেলেকে সাহায্য করেছে অভিযুক্তের স্ত্রী ও ছেলে।

    পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত বাবার নাম ব্রজ কিশোর প্রসাদ সিং, তিনি স্কুলের প্রাক্তন শরীরশিক্ষার শিক্ষক ছিলেন। মায়ের নাম কমললতা দেবী। রিটারায় হয়ে যাওয়ার পর তাঁরা সপরিবারে শিবাজি চৌকে তিনতলা বাড়ি কিনে থাকা শুরু করেন। ছেলে রাজন কুমারের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ত্যাগ করে দেন তাঁরা। জানিয়ে দেন, কোনও রকম আর্থিক সাহায্য বা সম্পত্তির ভাগ দেবেন না। তার পরই মা ও বাবাকে খুন করার পরিকল্পনা করে ছেলে।

    নিজের ৪৫ বছরের স্ত্রী সঞ্জু কুমারী ও তাদের ছেলে ২০ বছরের অবিনাশ কুমারের সহযোগিতায় মা ও বাবাকে খুনের ছক কষেছিল ছেলে রাজন। বৃহস্পতিবার শ্বাস আটকে দুই প্রবীণকে খুন করে তারা। খুন করে তারাই পুলিশকে খবর দিয়েছিল। তারা জানিয়েছিল, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন এই প্রবীণ দম্পতি। তবে দুই মৃতের শরীরেই আঘাতের চিহ্ন থাকায় প্রথমেই সন্দেহ হয় পুলিশের। তিন জনেই দুটি দেহ সৎকারের জন্য নিয়ে যাওয়ার বন্দোবস্তও করে ফেলেছিল। অবিনাশের নখে রক্তের দাগ ছিল। সেই থেকেই পুলিশ নিশ্চিত হয়ে যায় এটি খুন।

    শুক্রবার তিনজনকেই গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশি জেরার সময় রাজন নিজের অপরাধ স্বীকার করে নেয়। মৃতা কমললতা দেবীর ভাই ঘটনায় খুনের মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ জানতে পেরেছে, এর আগেও একবার বাবাকে খুনের চেষ্টা করেছিল ছেলে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: