সম্পত্তির টানাপোড়েনে বৃদ্ধ বাবাকে ঘরে ঢুকতে বাধা ছেলের, পুলিশের সহযোগিতায় ঘরে ফিরলেন বৃদ্ধ

সম্পত্তির টানাপোড়েনে বৃদ্ধ বাবাকে ঘরে ঢুকতে বাধা ছেলের, পুলিশের সহযোগিতায় ঘরে ফিরলেন বৃদ্ধ
প্রতীকী ছবি ৷

বৃদ্ধ বয়সের এক যন্ত্রণা

  • Share this:

#দুর্গাপুর: সম্পত্তির টানাপোড়েন থেকে শুরু দুই ছেলের সংঘাত, যার কোপ পড়লো বাবার ওপর। যার জেরে বাড়িতে ভিতর থেকে তালা ঝুলিয়ে বাবাকেই ঘরে ঢুকতে বাধা। শেষ পর্যন্ত পুলিশ এসে বৃদ্ধের ছোটো ছেলেকে থানায় নিয়ে গিয়ে বাবাকে ঘরে ঢোকালো ।

বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুরের কোকওভেন থানা এলাকার শান্তিবন পার্কে। দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী মানিক ভটাচার্যের দুই ছেলে, বড় ছেলে আর্থিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হলেও ছোটো ছেলে কাজল অনেকটাই দুর্বল আর্থিক দিক থেকে। অবসরের টাকা দিয়ে শান্তিবন পার্কে দোতলা বাড়ি তৈরী করেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত এই ইস্পাত কর্মী। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর দুই ছেলেকে বাড়ির দুটি ফ্লোর সমানভাবে ভাগ করে দেন দুই ছেলেকে ৷

আর নিজে যাতে সংসারের বোঝা হয়ে যাতে না দাঁড়ান তার জন্য এই বয়সেও একটি পেট্রোল পাম্পে অ্যাকাউন্টের কাজ করেন।

কিন্তু এতেও শেষ রক্ষা আর হলো না। অভিযোগ দুই ছেলে, পুত্রবধূ আর নাতি নাতনিদের মনমালিন্যের জেরে এবার ৮০ বছরের এই বৃদ্ধি নিজের বাড়িতে ব্রাত্য। শেষ পর্যন্ত নিজের টাকায় তৈরী সেই ঘরে ঢুকতে পুলিশের সাহায্য নিতে হলো মানিক বাবুকে।প্রতিদিনকার মতো বুধবার সকালে কাজে বেড়িয়েছিলেন মানিক ভটাচার্য। সারাদিন পর রাতে ঘরে ফিরে দেখেন ঘরের মূল দরজায় তালা ।

অনেক ডাকাডাকির পরও ভেতর থেকে দরজা খোলা না হলে পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি। কোকওভেন থানার পুলিশ মানিক বাবুকে নিয়ে শান্তিবন পার্কে তার নিজের বাড়িতে আসে। কিন্তু পুলিশকে প্রথমে ঘরে ঢুকতে দেয়নি তারা। একপ্রকার জোর করেই ৮০ বছরের মানিক ভটাচার্যকে নিয়ে ঘরে ঢোকে পুলিশ। দুর্গাপুর নগর নিগমের চার নম্বর বোরো চেয়ারম্যান চন্দ্রশেখর বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন মানিক ভটাচার্য অত্যন্ত ভাল মানুষ। সমস্যার কথা বলায় তিনি থানায় ফোন করে বিষয়টি জানান। এরপর পুলিশ এসে বৃদ্ধকে বাড়িতে ঢুকতে সাহায্য করে।

First published: 05:18:16 PM Sep 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर