ওষুধ খাওয়ানোয় জোরাজুরি! ছেলের হাতে খুন বৃদ্ধ বাবা

ওষুধ খাওয়ানোয় জোরাজুরি! ছেলের হাতে খুন বৃদ্ধ বাবা

ওষুধ খেতে জোর করাটাই ছিল বাবার অপরাধ। তার মাশুল দিতে হল বৃদ্ধ বাবাকে। মাথায় আঘাত করে খুন করল ছেলে।

ওষুধ খেতে জোর করাটাই ছিল বাবার অপরাধ। তার মাশুল দিতে হল বৃদ্ধ বাবাকে। মাথায় আঘাত করে খুন করল ছেলে।

  • Share this:

    #চেন্নাই: মানসিক ভাবে অসুস্থ ছিল ছেলে। অনেক দিন ধরে তার চিকিৎসা চলছে। কিছু দিন আগেই মাদুরাইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে ছুটি পেয়ে বাড়ি এসেছিল ২৩ বছরের এম পুরুষোতমন। প্রতি দিন তাকে ঘরে গিয়ে ওষুধ খাইয়ে আসতেন তার বৃদ্ধ বাবা। কিন্তু এই বুধবার ওষুধ খাওয়াতে গিয়ে ঘটে গেল এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। ছেলে ওষুধ খেতে রাজি হচ্ছিল না কিছুতেই। ওষুধ খেতে জোর করাটাই ছিল বাবার অপরাধ। তার মাশুল দিতে হল বৃদ্ধ বাবাকে। মাথায় আঘাত করে খুন করল ছেলে।

    ঘটনাটি ঘটে বুধবার রাতে তামিলনাড়ুর কোভিলপাট্টি এলাকায়। ২৩ বছরের অভিযুক্ত মানসিক অবসাদে ভুগছিল বহু দিন ধরে। তাকে নিয়ে বাবা-মাও সব সময় দুশ্চিন্তা করতেন। মাঝে মধ্যেই তাকে অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হত।

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ৭৩ বছরের বৃদ্ধ ওই ব্যক্তি ওষুধ খাওয়ানোর জন্য ছেলের ঘরে গিয়েছিলেন। কিন্তু ছেলে রাজি হচ্ছিল না বলে তিনি বার বার জোর করছিলেন। ওষুধ খাওয়া নিয়ে উভয়ের মধ্যে গন্ডগোল বাধে। সেই নিয়ে দুজনের মধ্যে কিছু ক্ষণ ধরে কথা কাটাকাটি হচ্ছিল। তার পরেই ছেলে রেগে গিয়ে ব্যক্তির মাথায় এবং মুখে ভারী বস্তু দিয়ে আঘাত করে। তৎক্ষণাৎ ওই ব্যক্তি মাটিতে পড়ে যান এবং সেখানেই তাঁর মৃত্যু ঘটে।

    ওই ব্যক্তির নাম মোহনরাজ। তিনি দু’বার বিয়ে করেছিলেন। দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী আনন্দি এবং মোহনরাজের ছেলে হল পুরুষোতমন। একটি বেসরকারি কলেজ থেকে ডিপ্লোমা করে সে। কিন্তু কিছু দিন আগে তার মধ্যে কিছু মানসিক পরিবর্তন লক্ষ্য করে পরিবার৷ তাই তাকে মাদুরাইয়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ছুটি পেলেও সম্পূর্ণ ভাবে সে সুস্থ ছিল না। আর সেই অসুস্থতার কারণেই তাকে ওষুধ খেতে জোর করছিলেন মোহনরাজ।এখন পুলিশ পুরুষোতমনকে গ্রেফতার করেছে। তবে তার শাস্তি কী হবে সেটা আদালতে তাকে হাজির করার পর জানা যাবে।

    Published by:Somosree Das
    First published:

    লেটেস্ট খবর