• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • SON ALLEGEDLY MURDERS FATHER IN PURULIA BURIES BODY ON RIVER BANK DMG

Purulia Murder: বৃদ্ধকে খুন করে নদীর পাড়ে পুঁতে দিল ছেলে- বৌমা! চাঞ্চল্য পুরুলিয়ায়

প্রতীকী ছবি৷

মৃত বৃদ্ধের নাম মহেশ্বর সোরেন (৭২)৷ তিনি কাশীপুরের মালনচডি গ্রামের বাসিন্দা৷ তাঁকে খুনের অভিযোগে বৃদ্ধের মেজ ছেলে শ্রীকান্ত সোরেন ও পুত্রবধূ নমিতা সোরেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ (Purulia Murder)৷

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: বাবাকে খুন করল ছেলে এবং বৌমা৷ তার পর বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে নদীর পাড়ে বৃদ্ধের দেহ পুঁতে রেখে এলো দু' জনে৷ পাঁচ দিন পর মাটি খুঁড়ে সেই দেহ উদ্ধার করল পুলিশ৷ এই ঘটনাকে ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পুরুলিয়ার কাশীপুরে৷

    জানা গিয়েছে, মৃত বৃদ্ধের নাম মহেশ্বর সোরেন (৭২)৷ তিনি কাশীপুরের মালনচডি গ্রামের বাসিন্দা৷ তাঁকে খুনের অভিযোগে বৃদ্ধের মেজ ছেলে শ্রীকান্ত সোরেন ও পুত্রবধূ নমিতা সোরেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ গত সোমবার থেকে নিখোঁজ ছিলেন মহেশ্বর সোরেন৷ সেই সময় মহেশ্বরবাবুর বড় ও ছোট ছেলে বাড়িতে ছিলেন না৷ পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার রাতেই মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে বাবাকে খুন করে শ্রীকান্ত৷ এর পর স্ত্রী নমিতাকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে দ্বারকেশ্বর নদীর পাড়ে বাবার দেহ পুঁতে রেখে আসে শ্রীকান্ত৷

    বাড়ি ফিরে এসে বাবাকে দেখতে না পেয়ে শ্রীকান্তকে প্রশ্ন করে তার দাদা ও ভাই৷ কিন্তু শ্রীকান্ত বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে৷ এর পরে বাড়ির ভিতরেই রক্তের দাগ দেখে মহেশ্বরবাবুর বাকি দুই ছেলের সন্দেহ হয়৷ তখনই কাশীপুর থানায় বাবার নামে নিখোঁজ ডায়েরি করেন তাঁরা৷

    অভিযোগ পেয়ে এ দিন গ্রামে গিয়ে শ্রীকান্ত এবং তার স্ত্রীকে জেরা করে পুলিশ৷ প্রথমে পুলিশের প্রশ্নের মুখে অসংলগ্ন জবাব দিচ্ছিল শ্রীকান্ত এবং নমিতা৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য জেরার মুখে ভেঙে পড়ে গোটা ঘটনার কথা স্বীকার করে তারা৷ শ্রীকান্তু দাবি করে, বাবা তার স্ত্রীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছিল৷ আর সেই রাগেই বাবার মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করে সে৷ ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বৃদ্ধে৷

    এর পর অভিযুক্ত ছেলে এবং বৌমাকে সঙ্গে নিয়ে গিয়ে নদীর পাড় থেকে মাটি খুঁড়ে বৃদ্ধের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ মৃতদহটি ময়নাতদন্তের জন্য পুরুলিয়া মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়৷ অভিযুক্ত শ্রীকান্ত এবং তার স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷

    Indrajit Mondal
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: