টাকা হাতাতেই কি হাসান আলিকে খুন? নাকি নেপথ্যে অন্য কোনও শত্রুতা?

টাকা হাতাতেই কি হাসান আলিকে খুন? নাকি নেপথ্যে অন্য কোনও শত্রুতা?

খুন করে ব্রোকারদের বিরুদ্ধে ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পরিবারের। ঘটনার পর থেকে বেপাত্তা এক দালালও।

  • Share this:

#কলকাতা: হোটেল লিজের বকেয়া টাকা দিতে গিয়ে রহস্যজনকভাবে খুন। মেচেদা লোকালে ট্রলিব্যাগ থেকে উদ্ধার হওয়া দেহ পাঁশকুড়ার বাসিন্দা হাসান আলির। খুন করে ব্রোকারদের বিরুদ্ধে ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পরিবারের। ঘটনার পর থেকে বেপাত্তা এক দালালও।

- ট্রেনে ট্রলি ব্যাগে উদ্ধার রক্তাক্ত দেহ - ট্রলিতে বউবাজারের ব্যবসায়ীর দেহ

- টাকার জন্যই খুন, দাবি পরিবারের

মেচেদা লোকা ট্রেনে ট্রলি ব্যাগে রক্তাক্ত দেহ। নিহত পাঁশকুড়ার গোবিন্দনগরের বাসিন্দা হাসান আলি। কলকাতার বউবাজারে দোকান ছিল হাসানের। দিঘার হোটেল লিজ নিয়েছিলেন তিনি। তারই টাকা দিতে গিয়ে রহস্যজনকভাবে খুন ব্যবসায়ী।

দিঘায় হোটেল লিজের চুক্তি করেছিলেন হাসান আলি ৷ ২১ লক্ষ টাকায় হোটেল প্রতিমা গেস্ট ইনের লিজ ৷ ১২ ফেব্রুয়ারি ১৫ লক্ষ টাকা দেন হাসান ৷

২৪ ফেব্রুয়ারি বাকি ৬ লক্ষ টাকা হোটেল মালিক রঞ্জন দে- কে দেওয়ার কথা ছিল। সেই মতো টাকা নিয়ে সোমবার সকালে বউবাজার থেকে দিঘায় রওনা হন হাসান আলি।

চার দালাল মারফত হোটেল লিজের চুক্তি হয় ৷ সোমবার রাতে হাসানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে পরিবার ৷ কিন্তু হাসান নয়, ফোন ধরে এক দালাল রাজু হালদার ৷

দিঘার রামনগরে শেষবার হাসান আলির মোবাইল টাওয়ার লোকেট হয়। তারপরই সুইচ অফ। এই এলাকাতেই দালাল রাজু হালদারের বাড়ি। দেহ উদ্ধারের পর থেকে রাজুও বেপাত্তা। টাকা হাতাতেই কি হাসান আলিকে খুন ? নাকি নেপথ্যে অন্য কোনও শত্রুতা? সবদিক খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

First published: February 28, 2020, 9:28 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर