• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • শীতের রাতে পরপর ৩দিন ৩জনকে খুন! শরীর ঠান্ডা হয়ে যাবে ঘটনা জানলে...

শীতের রাতে পরপর ৩দিন ৩জনকে খুন! শরীর ঠান্ডা হয়ে যাবে ঘটনা জানলে...

তৃতীয় হত্যার ঘটনাটি সবচেয়ে নির্মম ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

তৃতীয় হত্যার ঘটনাটি সবচেয়ে নির্মম ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

তৃতীয় হত্যার ঘটনাটি সবচেয়ে নির্মম ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

  • Share this:

    #গুরুগ্রাম: তিন রাতে পরপর তিনজনকে খুন করার অপরাধে গ্রেফতার করা হল এক ২২বছর বয়সী যুবককে৷ লুঠপাট করার অভিপ্রায়তেই এই কাজ সে করেছে বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিশের৷ বৃহস্পতিবার ইফফকো চকের কাছ থেকে, মহম্মদ রাজি নামে ওই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে, জানিয়েছে পুলিশ ।

    অভিযুক্ত গুড়গাঁওয়ের একটি গেস্ট হাউসে হাউসকিপিং -র কাজে নিযুক্ত ছিল৷ তবে গত এক মাস ধরে সে বেকার ছিল। জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়, গত সপ্তাহে পরপর ২৩,২৪ ও ২৫ নভেম্বর রাতে সে হত্যা করে। জানিয়েছেন ,এসিপি প্রীত পাল সাংওয়ান।

    পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত ব্যক্তি বিহারের বাসিন্দা৷ যাদের খুন করা হয়েছে, তাদের সঙ্গে আগে বসে সে সাথে মদ্যপান করে৷ এরপর মাদকাসক্ত অবস্থায় তাদের ছুরিকাঘাত করে। পরে তাদের জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত ব্যক্তি। ২৩ শে নভেম্বর রাতের প্রথম হত্যাকাণ্ড ঘটে৷ যেখানে ভ্যালি পার্কের কাছে এক যুবককে ছুরিকাঘাত করে খুন করা হয়৷ পরের দিন রাতে, মহম্মদ রাজি ৪০ নম্বর সেক্টরের গ্রিন বেল্ট এলাকায় এক নিরাপত্তারক্ষীকে ছুরিকাঘাত করে বলে অভিযোগ। তৃতীয় হত্যার ঘটনাটি সবচেয়ে নির্মম ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ৷ মৃতের নাম রাকেশ কুমার ৷ ২৬বছর বয়সী ওই যুবককে ছিন্নভিন্ন অবস্থায় পাওয়া গেছে। প্রথমে তার মাথা পাওয়া যায়নি৷

    রাজি গ্রেফতার হওয়ার পরই তৃতীয় লাশটি সেক্টর ৪৭-এ ভিজিল্যান্স ব্যুরো অফিসের সামনে একটি ফাঁকা প্লটে পাওয়া যায়। ধড় থেকে মাথা আলাদা থাকায় তার আধার কার্ড দেখে সনাক্ত করা হয়৷ এরপর তার পরিবারে জানানো হয়৷ তারা এসে পরিচয় নিশ্চিত করেছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও তার পরিবার তল্লাশি চালালেও বিচ্ছিন্ন মাথাটি কোথাও পাওয়া যায়নি। এরপর অভিযুক্ত জানায়, পুলিশের হাত থেকে নিস্তারের আশায়,অভিযুক্ত মৃতের মাথাটি দেহ থেকে আলাদা করে, একটি কাপড়ে বেঁধে ঘাসের ভিতর লুকিয়ে রাখে। এরপর লাশটি নালায় ফেলে দেওয়া হয়।

    অভিযুক্তের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ৪০ নম্বর সেক্টরের কানহাই গ্রামের একটি নির্জন জায়গা থেকে মাথাটি উদ্ধার করা হয়েছে,জানিয়েছে পুলিশ৷ এদিকে, কুমারের আত্মীয়স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা অভিযুক্ত ও তার মধ্যে কোনও যোগসূত্র সম্পর্কে অবহিত না বলে জানিয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তকে শুক্রবার আদালতে পেশ করা হয়েছে এবং তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে৷

    Simli Dasgupta

    Published by:Pooja Basu
    First published: