প্রেমিকাকে সাইবার বুলিং! প্রতিশোধ নিতে ৫০০ ল্যাপটপ চুরি, ধৃত প্রেমিক

প্রেমিকাকে সাইবার বুলিং! প্রতিশোধ নিতে ৫০০ ল্যাপটপ চুরি, ধৃত প্রেমিক

২০১৫ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজের হস্টেল থেকে কমপক্ষে ৫০০টি ল্যাপটপ এবং অন্যান্য দামি গ্যাজেট চুরি করেছে অভিযুক্ত।

২০১৫ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজের হস্টেল থেকে কমপক্ষে ৫০০টি ল্যাপটপ এবং অন্যান্য দামি গ্যাজেট চুরি করেছে অভিযুক্ত।

  • Share this:

    #রাজকোট: পাঁচ বছর আগে সাইবার বুলিং-এর শিকার হয়েছিলেন প্রেমিকা। প্রতিশোধ নিতে অভিনব পন্থা গ্রহণ করল এক ব্যাক্তি। ঘটনাটির সূত্রপাত তামিলনাড়ুর চেন্নাইয়ে। বুধবার দিন জামনগর পুলিশ গ্রেফতার করে অভিযুক্তকে। সূত্রের খবর, বছর পাঁচ আগে চেন্নাইয়ের কিছু মেডিক্যাল শিক্ষার্থী অভিযুক্তের বান্ধবীকে চরম হেনস্থা করেছিল। সেই কারণে তার মেডিক্যাল ছাত্রদের প্রতি একটা ক্ষোভ ও বিতৃষ্ণা জমতে থাকে। ওই ছাত্রদের শারীরিক কোনও ক্ষতি সে করেনি। কিন্তু প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য সে অন্য রাস্তা বেছে নিয়েছিল। মেডিক্যাল ছাত্রদের দামি মোবাইল ফোন থেকে শুরু করে ল্যাপটপ এবং অন্যান্য দামি গাজেট সে চুরি করতে থাকে। কেবল তাই নয়, দেশের অন্যান্য মেডিক্যাল ছাত্রদের উপরেও তার রাগ তৈরি হতে থাকে। বুধবার দিন, জামনগরের পুলিশ ২৪ বছরের তামিলসেলভন কান্ননকে গ্রেফতার করে। ২০১৫ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন মেডিক্যাল কলেজের হস্টেল থেকে কমপক্ষে ৫০০টি ল্যাপটপ এবং অন্যান্য দামি গ্যাজেট চুরি করেছে সে। গত বছর ২৬ ডিসেম্বর এমপি শাহ মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলের একটি ঘর থেকে প্রায় ছ’টি ল্যাপটপ চুরির অভিযোগ করা হয়। তারপর থেকেই পুলিশ তদন্ত শুরু করে। পুলিশ কান্ননকে গ্রেফতার করলে সে দোষ স্বীকার করে নেয়। জামনগর থানার এক কর্তৃপক্ষ কে এল গাদে জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে চেন্নাইয়ের মেডিক্যাল বিভাগের কয়েকজন ছাত্র মিলে গোপনে অভিযুক্তের বান্ধবীর অশ্লীল ছবি ও ভিডিও তোলে। তারপরে সেগুলি অনলাইনে ভাইরাল করে দেয়। সেই থেকেই কান্ননের মনে মেডিক্যাল ছাত্রদের উপরে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়। তিনি আরও বলেন, কান্নন ইন্টারনেট দেখে মেডিক্যাল কলেজগুলির নাম ও ঠিকানা খুঁজে বের করত। সে মোবাইল ফোনের মতন ল্যাপটপ গুলি চুরি করত, যেগুলি সহজেই বিক্রি করে দেওয়া যায়। দক্ষিণ ভারতীয় মেডিক্যাল কলেজগুলি থেকে সে বেশি চুরি করত। কিন্তু পরে ফরিদাবাদের কাছে ভানক্রি গ্রামে চলে আসায় উত্তর ভারতীয় মেডিক্যাল কলেজ গুলিতে ছিনতাই শুরু করে। গত বছর ডিসেম্বরে সে গুজরাত যায়। জামনগরে অনুপম সিনেমা হলের কাছে সে একটি হোটেলে কিছু দিন ছিল। সেখানকার একটি হস্টেলের চাবি কোনও ভাবে সে খুঁজে পায় এবং তারপরেই একটি ঘর থেকে ছ’টি ল্যাপটপ চুরি করে সে। জামনগর পুলিশ এই বিষয়টির তদন্ত করছে। কয়েকটি ল্যাপটপ উদ্ধার করা গিয়েছে। কান্নন এখন পুলিশ হেফাজতে। কিছু দিন পরে তাকে আদালতে পেশ করা হবে।

    Published by:Somosree Das
    First published: