ক্রাইম

corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে চাকরি খুইয়ে মাদকের রমরমা ব্যবসা মহিলার!

লকডাউনে চাকরি খুইয়ে মাদকের রমরমা ব্যবসা মহিলার!

তিনি বলছেন যে, ভোপালে একটি শপিং মলে সেলস ওমেনের চাকরি করতেন তিনি৷ কিন্তু সেই চাকরি খোয়া যায় এই লকডাউনে৷ কোনও উপায় না দেখে রোজগারের জন্য তিনি এই ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।

  • Share this:

#ভোপাল: মাদক ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িত এক মহিলাকে গ্রেফতার করল ভোপাল পুলিশ৷ উত্তরপ্রদেশ থেকে ভোপাল ট্রেনে লুকিয়ে মাদক নিয়ে আসত সে। তাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের সময়, সে পুলিশকে জানায় যে, লকডাউনে চাকরি গিয়েছে তার৷ সেই চাকরি হারিয়ে তিনি বেকার হয়ে পড়েন। এরপরই সে মাদক ব্যবসার পথে নামার সিদ্ধান্ত নেয় এবং গাঁজা পাচার শুরু করে। পুলিশ ওই মহিলার সঙ্গে এক যুবককেও গ্রেফতার করেছে। তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

শাহপুরা পুলিশ জানিয়েছে যে গোপন সূত্রে তাদের কাছে খবর আসে যে, রেলস্টেশন থেকে এক মহিলা ও এক ব্যক্তি স্কুটার ও বাইক নিয়ে আসছে, যাদের সঙ্গে অবৈধ গাঁজা রয়েছে। এই তথ্যে পেয়ে অবিলম্বে ওই এলাকা পৌঁছে যায় পুলিশ ও দু’জনকেই রেলওয়ে ওভার ব্রিজের ওপরই তল্লাশি শুরু করে। ওই মহিলা ও ব্যক্তির কাছ থেকে ১ কেজি ২০০ গ্রাম গাঁজা পাওয়া গিয়েছে। যুবকের নাম কুলদীপ পাঠক ওরফে অজয় ​​পাঠক এবং ওই মহিলার নাম নীলম পুরী। দুজনেই উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা।

জানা গিয়েছে, নীলম পুরী বিশাখাপত্তনম হয়ে ললিতপুরে গাঁজা নিয়ে এসে ভোপালে পাচার করতে শুরু করেছিল। সে বলছে যে, ভোপালে একটি শপিং মলে সেলস ওমেনের চাকরি করত৷ কিন্তু সেই চাকরি খোয়া যায় এই লকডাউনে৷ কোনও উপায় না দেখে রোজগারের জন্য এই ব্যবসায়ের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে। চাকরি না থাকায় বেশ কিছুদিন বেকারত্বের সঙ্গে লড়াই করতে হয় তাকে৷ কিন্তু কোনও মতেই পেট চলছিল না৷ তাই এই সিদ্ধান্ত৷

বিশাখাপত্তনম থেকে গাঁজার প্যাকেট ট্রেনের এক বগিতে নামিয়ে দিয়ে নিজে অন্য বগিতে বসে পড়তেন। এতে অবৈধ মাদক হিসেবে গাঁজা ধরতে পারলেও পুলিশ তার কাছে পৌঁছতে পারবে না। এই কারণেই এমন ফন্দি আঁটা হয়৷ স্বামীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছে তার৷ এরপর অভিযুক্ত কুলদীপের সঙ্গে তার যোগাযোগ হয় এবং তার সঙ্গেই গাঁজা পাচার শুরু করে।

Published by: Pooja Basu
First published: October 7, 2020, 8:20 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर