বিভীষিকা! আইনের ছাত্রীকে ১২ জন মিলে ধর্ষণ করল রাঁচিতে

বিভীষিকা! আইনের ছাত্রীকে ১২ জন মিলে ধর্ষণ করল রাঁচিতে
News18 Creative

১২ জন মিলে ধর্ষণ করা শুরু করে৷ যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে, সেখান থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন মাত্র ১০ কিমি৷ এছাড়াও ঝাড়খণ্ড হাইকোর্টের প্রধানবিচারপতি, ডিজিপি, বিরোধী দলনেতার বাড়িও কাছেই৷

  • Share this:

#রাঁচি: হায়দরাবাদে মহিলা পশু চিকিত্‍সককে ধর্ষণ ও খুন ঘিরে যখন উত্তাল গোটা দেশ, তখন আরও একটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল রাঁচিতে৷ ২৫ বছর বয়সি এক আইনের ছাত্রীকে কপালে বন্দুক ঠেকিয়ে ১২ জন মিলে ধর্ষণ করল৷ রাঁচির হাই-সিকিউরিটি ভিআইপি জোনে ওই গণধর্ষণ ঘটেছে৷

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ১২ জন অভিযুক্তই ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করেছে৷ কাঙ্কে পুলিশ স্টেশনে ১২ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন ধর্ষিত তরুণী৷ অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, গত ২৬ নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৫টায় তিনি বন্ধুদের সঙ্গে রাঁচির উপকণ্ঠে সংগ্রামপুর এলাকায় গিয়েছিলেন৷ তখন বাইকে করে দুই ব্যক্তি তাঁকে অপহরণ করে নিয়ে যায়৷ বন্ধুরা বাধা দিতে গেলে মারধর করে৷ তরুণীর কপালে বন্দুক ঠেকিয়ে রেখেছিল ওরা৷

তারপর নিয়ে যায় রাঁচির ভিআইপি জোনে৷ ১২ জন মিলে ধর্ষণ করা শুরু করে৷ যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে, সেখান থেকে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন মাত্র ১০ কিমি৷ এছাড়াও ঝাড়খণ্ড হাইকোর্টের প্রধানবিচারপতি, ডিজিপি, বিরোধী দলনেতার বাড়িও কাছেই৷ তরুণী জানিয়েছেন, যে মোটরবাইকে তাঁকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, মাঝ রাস্তায় বাইকের তেল ফুরিয়ে যায়৷ লোকটি তার কয়েকজন বন্ধুকে ফোন করে৷ এরপর কয়েকজন একটি গাড়ি নিয়ে আসে৷ তরুণীকে ওই গাড়িতে তুলে একটি ভাঙা বাড়ির পিছনে নিয়ে গিয়ে ১২ জন মিলে ধর্ষণ করে৷

পরের দিন ভোরে গুরুতর আহত অবস্থাতেই তরুণী থানায় যান৷ পুলিশের কাছে সব জানান৷ অভিযোগের ভিত্তিতে ১২ জনকে আটক করে পুলিশ৷ ধৃতরা ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করেছে৷

First published: 12:12:54 PM Nov 29, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर