• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • কম দামে ভাল আমের লোভ দেখি অপহরণ, দাবি ৮ লক্ষ টাকা

কম দামে ভাল আমের লোভ দেখি অপহরণ, দাবি ৮ লক্ষ টাকা

  • Share this:

    #বারুইপুর: কম দামে ভাল আমের সন্ধান দেওয়ার নাম করে নিয়ে গিয়ে সোনারপুর এর এক ব্যক্তিকে অপহরণ করে আট লক্ষ টাকা দাবি।  খবর পাওয়ার পর ফিল্মি কায়দায় মালদহ থেকে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার সোনারপুর পুলিশের। গ্রেফতার দুই ।

    সোনারপুরে সাহেবপাড়ার বাসিন্দা অশোক রায় ৭ জুলাই মালদহ যান পাথর কিনতে । সঙ্গে ছিল স্থানীয় এক যুবক বিশ্বজিৎ ওড়াও । কোনো কারণে পাথর কেনা না হওয়ায় আম কেনার সিদ্ধান্ত নেয় অশোক বাবু । সেই সময় দুজন ব্যক্তি কম দামে ভালো আম কিনিয়ে দেওয়ার অছিলায় একটি গাড়িতে করে কালিয়াচকের দিকে নিয়ে যায় ।এরপর ওই দুই ব্যক্তির সাথে যোগ দেয় আরো দুজন । এরপর বন্দুক দেখিয়ে অপহরণ ওকে একটি ফাঁকা মাঠে নিয়ে যায় দুজনকে । দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখে তাদের কাছে থাকা সমস্ত কিছু কেড়ে নেয় অপহরণকারীরা । সেখানে দুদিন ফাঁকা মাঠে তাদের বেঁধে রেখে চলে অত্যাচার । এরই মধ্যে বিশ্বজিৎ কোনরকমে পালিয়ে যেতে স্বচেস্ট হয় । এরপর অশোক বাবুকে ইংরেজবাজার থানা এলাকার একটি জায়গায় ঈশারুদ্দিন শেখের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় ।

    মুক্তিপণ হিসেবে আট লক্ষ টাকা দাবি করে বাড়িতে ফোন করা হয় । পাশাপাশি বন্দুকের বাঁট দিয়ে ব্যাপক মারধোর করাও হয় । সোনারপুরের বাড়িতে অশোক বাবুর স্ত্রী অপর্ণা দেবী মুক্তিপনের ফোন পেয়ে ১০ জুলাই সোনারপুর থানার দ্বারস্থ হয় । বিষয়টি জানার পরেই নড়েচড়ে বসে বারুইপুর পুলিশ জেলার বড় কর্তারা । জেলা পুলিশ সুপার রশিদমুনির খান এর নির্দেশে সোনারপুর থানার দুই অফিসার প্রদীপ রায় ও অর্ঘ মন্ডলের নেতৃত্বে চার জনের একটি দল অপর্ণা দেবীকে সঙ্গে নিয়ে রওনা দেয় মালদহ । টোপ হিসাবে সঙ্গে নেওয়া হয় একটি টাকার ব্যাগ ।আগে থেকেই নির্দিষ্ট জায়গায় সাদা পোশাকে উপস্থিত ছিল স্থানীয় পুলিশ । স্টেশনে নেমে মোবাইলে অপর্ণা দেবী যোগাযোগ করে অপহরণকারীদের সঙ্গে । তারা টাকা চাইলে ব্যাগ খুলে তাদের টাকা দেখিয়ে স্বামীর কাছে আগে নিয়ে যেতে বলে । এর পর একটি টোটোতে অপর্ণা দেবীকে উঠতে বলা হয় । তার সঙ্গে ওঠে একজন সাদা পোশাকের পুলিশও । এরপর ওই টোটোর পিছু নেয় অন্য একটি টোটোতে বাকি পুলিশ এর দলটি ।

    ঈশারুদ্দিন এর বাড়িতে গিয়ে স্বামীকে দেখতে পান অপর্ণা দেবী । এর পরই আসল রূপ নেয় পুলিশ । চারিদিক দিয়ে ঘিরে ধরলে একজন পালিয়ে যায় । ঈশারুদ্দিন শেখ ও বিলাল শেখ নামে দুজন কুখ্যাত অপহরণকারীকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে পুলিশ । শুক্রবার ধৃতদের তোলা হয় বারুইপুর আদালতে । বারুইপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার রশিদ মুনির খান জানান এই দলটি এর আগেও বেশ কয়েকটি অপহরণের ঘটনায় যুক্ত । এই দুজন ছাড়া গোটা দলটিকে হাতে পেতে এই দুজনকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য আবেদন জানানো হবে আদালতে । পাশাপাশি ফিল্মি কায়দায় দুই কুখ্যাত দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার ও অপহৃত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে আনায় পুলিশ দলটিকে বাহবাও জানিয়েছেন । অন্যদিকে খবর পাওয়ার একদিনের মধ্যে অতি তৎপরতার সাথে পুলিশ যে ভাবে উদ্ধার করেছে তাই পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে রায় দম্পতি ।

    First published: