Home /News /crime /
গর্ভস্থ শিশু ছেলে না মেয়ে? উত্তর জানতে সোজা গর্ভবতী স্ত্রীয়ের পেট কেটে ফেলল স্বামী!

গর্ভস্থ শিশু ছেলে না মেয়ে? উত্তর জানতে সোজা গর্ভবতী স্ত্রীয়ের পেট কেটে ফেলল স্বামী!

ছুরি দিয়ে একটানে চিরে ফেলেন স্ত্রীয়ের পেট ৷ যন্ত্রণায় চিৎকার করে ওঠেন অন্তঃসত্ত্বা ৷ তাঁর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে দেখেন রক্তে ভেসে যাচ্ছে গোটা ঘর আর পেট কাটা অবস্থায় যন্ত্রণায় ছটফট করছেন ওই মহিলা ৷

  • Last Updated :
  • Share this:

#বরেলি: ভারতে ভ্রূণের লিঙ্গ নির্ধারণ আইনত অপরাধ ৷ ডাক্তারি পরীক্ষার মাধ্যমে জন্মের আগে লিঙ্গ নির্ধারণ এদেশে বহু বছর ধরেই বেআইনি ৷ স্ত্রীর গর্ভে কে এসেছে ছেলে না মেয়ে? সোজা পথে ডাক্তারি পরীক্ষায় তা জানা সম্ভব নয় বলে লিঙ্গ নির্ধারণ করতে নৃশংস পদক্ষেপ নিলেন এক ব্যক্তি ৷ গর্ভস্থ ভ্রুণের লিঙ্গ জানতে সোজা ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফালা ফালা করে কেটে ফেললেন স্ত্রীয়ের পেট !

এমন নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বরেলিতে ৷ অভিযুক্তের নাম পান্নালাল ৷ জানা গিয়েছে ওই দম্পতির এর আগে পাঁচটি মেয়ে রয়েছে ৷ পর পর পাঁচটিই মেয়ে হওয়ায় স্ত্রীর প্রতি ভীষণও অসন্তুষ্ট ছিলেন পান্নালাল ৷ প্রায়শই তিনি স্ত্রীয়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার, অত্যাচার করতেন বলে জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা ৷ এমন অবস্থায় ষষ্ঠবার বউ গর্ভবতী হতেই গর্ভের সন্তানের লিঙ্গ জানতে উদগ্রীব হয়ে ওঠে সে ৷

কোনও আইনি পদ্ধতিতে নিশ্চিতভাবে ভ্রুণের লিঙ্গ নির্ধারণের উপায় খুঁজে না পেয়ে শেষ পর্যন্ত নিজেই এক নৃশংস পদ্ধতি নেয় ৷ শনিবার রাতের দিকে রান্নাঘরের মাংস কাটার ধারালো ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীয়ের উপর ৷ ছুরি দিয়ে একটানে চিরে ফেলেন স্ত্রীয়ের পেট ৷ যন্ত্রণায় চিৎকার করে ওঠেন অন্তঃসত্ত্বা ৷ তাঁর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে দেখেন রক্তে ভেসে যাচ্ছে গোটা ঘর আর পেট কাটা অবস্থায় যন্ত্রণায় ছটফট করছেন ওই মহিলা ৷ তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা ৷ খবর দেওয়া হয় পুলিশে ৷ গ্রেফতার হয় অভিযুক্ত পান্নালাল ৷ পুলিশ জানিয়েছে, এই মুহূর্তে পান্নালালের স্ত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৷ প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় মা ও গর্ভের শিশু দুজনেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক ৷

Published by:Elina Datta
First published:

Tags: Pregnant Wife