Home /News /crime /
চিকিৎসক স্বামী এক্কেবারে সমকামী, হানিমুনের চরম ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে 'কীর্তি' ফাঁস, মারধর! তারপর যা করলেন নববধূ...

চিকিৎসক স্বামী এক্কেবারে সমকামী, হানিমুনের চরম ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে 'কীর্তি' ফাঁস, মারধর! তারপর যা করলেন নববধূ...

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

তরুণীর অভিযোগ, বিয়ের আগে স্বামীর সমকামীতা সম্পর্কে তিনি কিছুই জানতে না। বিয়ের পরেও, তা ভালভাবে বুঝতে পারেননি। কিন্তু মানালিতে হানিমুনে গিয়ে স্বামীর দুর্বলতা বুঝতে পারেন।

  • Share this:

    #আগ্রা: চিকিৎসক স্বামী সমকামী। হানিমুনে গিয়ে চরম ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে জানতে পারেন স্ত্রী।  সে কথা এক বাক্যে স্বীকারও করে নেন যুবক। পাশাপাশি তিনি দীর্ঘ দিন ধরে অসুখে ভুগছেন, সে কথাও জানান স্ত্রীকে। এরপর বাড়ি ফিরে চিকিৎসক স্বামী এবং তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে থানায় প্রতারণা, হেনস্থা এবং পণ নেওয়ার দায়ে অভিযোগ জানালেন নববধূ। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে।

    সম্প্রতি ৩০ লক্ষ খরচ করে বিয়ে করেন কোতওয়ালি এলাকার ওই তরুণী। আলিগড় রোডের বাসিন্দা যুবক তরুণীর স্বামী পেশায় চিকিৎসক। তরুণীর অভিযোগ, বিয়ের আগে স্বামীর সমকামীতা সম্পর্কে তিনি কিছুই জানতে না। বিয়ের পরেও, তা ভালভাবে বুঝতে পারেননি। কিন্তু মানালিতে হানিমুনে গিয়ে স্বামীর দুর্বলতা বুঝতে পারেন। এরপরই চিকিৎসক স্বামী তাঁকে জানান, তিনি এক্কেবারে সমকামী। মহিলাদের প্রতি কোনও আকর্ষণ নেই তাঁর। এমনকি তর্কবিতর্কের মধ্যে ওই যুবক তাঁকে খুন করতে জান বলেও তরুণী আগ্রা মহিলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

    তরুণীর অভিযোগ, লক্ষ লক্ষ টাকা খবর করে বিয়ে করার পরেও খুশি ছিল না স্বামীর পরিবারের সদস্যরা। তাঁকে নানাভাবে হেনস্থা করা হত মানসিকভাবে। তবে সবটাই প্রথমাবস্থায় মেনে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু গোল বাধে হানিমুনে গিয়ে।  তরুণী জানিয়েছেন, বিয়ের দু'দিন পরে পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক মানালিতে হানিমুনে যান তাঁরা। সেখানেই রিসর্টে চিকিৎসক ওই যুবক নিজের সমকামীতার কথা নববধূকে জানান।

    তরুণী পুলিশকে জানিয়েছেন, সমকামী জানানোর পাশাপাশি, রিসর্টে তাঁকে মারধর করে ওই যুবক। বেড়াতে বেরিয়ে ধাক্কা মেরে পাহাড় থেকে খাদে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে ওই স্বামী। কোনও মতে প্রাণ বাঁচিয়ে রিসোর্টে ফেরেন তরুণী। কিন্তু এখানেই শেষ হয়নি। তরুণী জানিয়েছেন, রিসোর্টে ফিরেই স্বামী তাঁকে গলা টিপে ধরেন প্রাণে মেরে  ফেলার জন্য। বহু ধস্তাধস্তির পরে ছাড়া পান তিনি। তবে রাগে তাঁর মোবাইল ফোন ভেঙে দেন স্বামী। ঘটনার কথা বুঝতে পেরে রিসর্টের ঘরে ছুটে যান হোটেলের কর্তব্যরত স্টাফরা। তাঁরাই তরুণীকে উদ্ধার করে মানালি পুলিশে খবর দেন।

    এ দিকে পুলিশ রিসর্টে এসে দম্পতিকে বুঝিয়ে ফিরে যান। সেই অবস্থায় কিছুটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। রপর মানালি থেকে আগ্রার বাড়ি ফেরেন দম্পতি। আর তরুণী স্বামীর সঙ্গে ঘর করেননি। তিনি বাপের বাড়ি ফিরে যান তিনি। পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন বধূ লক্ষ লক্ষ টাকা পণ, প্রতারণা এবং হেনস্থার জন্য।  ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Agra

    পরবর্তী খবর