ক্রাইম

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

উত্তর প্রদেশে খুন প্রাক্তন বিধায়ক, ব্রাহ্মণ নির্যাতনের অভিযোগে অস্বস্তিতে যোগী সরকার

উত্তর প্রদেশে খুন প্রাক্তন বিধায়ক, ব্রাহ্মণ নির্যাতনের অভিযোগে অস্বস্তিতে যোগী সরকার
হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করা হয় বিধায়ককে৷ Photo-ANI

ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি এই প্রাক্তন বিধায়ক খুনের পর উত্তর প্রদেশে উচ্চবর্ণের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের আগুন আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

  • Share this:

#লখনউ: উত্তর প্রদেশে খুন হয়ে গেলেন তিন বারের প্রাক্তন বিধায়ক নীরভেন্দ্র কুমার মিশ্র৷ রবিবার লখিমপুর খেরি জেলায় একটি জমি সংক্রান্ত বিবাদে খুন হতে হয় বিধায়ককে৷ এই ঘটনায় স্বভাবতই প্রবল অস্বস্তিতে যোগী আদিত্যনাথ সরকার৷ কারণ এই হত্যাকাণ্ডের পর ফের একবার জাতপাতের রাজনীতির অভিযোগ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে৷ ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের একটি বিধায়ক খুনের পর উত্তর প্রদেশে উচ্চবর্ণের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের আগুন আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে৷

নিহত প্রাক্তন বিধায়কের পরিবারের অভিযোগ, বেশ কয়েকজন সশস্ত্র দুষ্কৃতী এ দিন দুপুরে একটি জমি দখল করার জন্য নিরভেন্দ্র এবং তাঁর ছেলের উপরে হামলা চালায়৷ জমি হাতছাড়া করতে রাজি না হওয়ায় প্রাক্তন বিধায়ককে হত্যা করা হয়৷ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিধায়কের ছেলে সঞ্জীবের অবস্থাও আশঙ্কাজনক৷ নিঘাসন কেন্দ্র থেকে তিন বারের বিধায়ক নির্বাচিত হন নীরভেন্দ্র৷ দু' বার নির্দল প্রার্থী এবং একবার সমাজবাদী পার্টির টিকিটে জয়ী হন তিনি৷ নিহত প্রাক্তন বিধায়কের পরিবারের অভিযোগ, দুষ্কৃতীদের সঙ্গে যোগসাজশ রয়েছে পুলিশের৷

এই ঘটনার পরই উত্তর প্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ সরকারের তীব্র সমালোচনা শুরু করেছে বিরোধীরা৷ রাজ্যের জঙ্গলের রাজত্ব চলছে বলে অভিযোগ করেছে কংগ্রেস৷ ঘটনার সমালোচনা করে ট্যুইট করেছেন বিএসপি নেত্রী মায়াবতীও৷ পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলে মন্তব্য করেছেন তিনি৷ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি৷

সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব দাবি করেছেন, প্রাক্তন বিধায়কের নৃশংস হত্যা দেখে গোটা রাজ্য শিউরে উঠেছে৷ তাঁর অভিযোগ দিনের বেলায় পুলিশের উপস্থিতিতেই খুন করা হয়েছে প্রাক্তন বিধায়ককে৷ অখিলেশ আরও অভিযোগ করেছেন, বিজেপি-র রাজত্বে উত্তর প্রদেশের মানুষ আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন৷

এই ঘটনায় ফের একবার উত্তর প্রদেশে উচ্চবর্ণদের বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগে সরব হয়েছে বিরোধীরা৷ বিকাশ দুবের এনকাউন্টারের ঘটনা এবং পরশুরামের মূর্তি স্থাপনের ঘোষণার পর থেকেই যে অভিযোগে সরব হয়েছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি৷ প্রাক্তন বিধায়কের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনা রাজ্যে ব্রাহ্মণ সমাজের উপরে নির্যাতনের আরও এক প্রমাণ বলেই যোগী সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা হচ্ছে৷ কংগ্রেস মুখুপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালাও প্রশ্ন তুলেছেন, উত্তর প্রদেশে ব্রাহ্মণ রাজনীতিবিদদেরই কেন নিশানা করছে অপরাধীরা?

উত্তর প্রদেশে বিধানসভা ভোটের আর ১৮ মাস বাকি৷ তার আগে উচ্চবর্ণের মানুষের ক্ষোভ প্রশমনই বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠতে পারে যোগী আদিত্যনাথের সামনে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: September 6, 2020, 10:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर