চাকরি ছাড়তে নারাজ স্ত্রী! মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারল স্বামী, গ্রেফতার অভিযুক্ত

চাকরি ছাড়তে নারাজ স্ত্রী! মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারল স্বামী, গ্রেফতার অভিযুক্ত
বাড়ি ফিরতে নারাজ ছিলেন স্ত্রী। এই ছিল তাঁর অন্যায়। প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য স্ত্রী’র মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারে স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির অশোক নগরে।

বাড়ি ফিরতে নারাজ ছিলেন স্ত্রী। এই ছিল তাঁর অন্যায়। প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য স্ত্রী’র মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারে স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির অশোক নগরে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: মনে পড়ে ছপ্পক ছবিতে দীপিকার মুখটা? ঝলসে যাওয়া সেই ক্ষত-বিক্ষত চেহারা? কারণ, তাঁর মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারা হয়েছিল। ছবিটি লক্ষ্মী আগরওয়ালের জীবনের সত্যি ঘটনাকে কেন্দ্র করে বানানো হয়। এ দেশে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারার ঘটনা প্রায়ই নজরে আসে। কেউ অ্যাসিড মুখে ছুঁড়বে এটা তো অনেক পরের ব্যাপার, খোলা অ্যাসিড বিক্রি কেন হচ্ছে, সেই নিয়ে যতই প্রতিবাদ- মিছিল হোক না কেন! আজও সেই সমস্যার কোনও সমাধান মেলেনি। সম্প্রতি এমনই এক ঘটনায় আঁতকে উঠেছে সকলে। বাড়ি ফিরতে নারাজ ছিলেন স্ত্রী। এই ছিল তাঁর অন্যায়। প্রতিশোধ নিতে তাই স্ত্রী’র মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ল স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির অশোক নগরে। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

    জেলা প্রশাসক দীপক যাদব জানিয়েছেন, দিল্লির অশোক নগরের কাছে একটি বাড়িতে একা ভাড়া থাকতেন বছর ২২-এর ওই মহিলা। রবিবার, তাঁর স্বামী ফোন করে জানায়, সে রাত্রের দিকে দেখা করতে আসছে। তারপর রাত ন’টা নাগাদ অভিযুক্ত মহিলার বাড়িতে যায় এবং দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গেই মহিলার মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারে। তারপর সেখান থেকে পালিয়ে যায়। মহিলার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ছুটে আসেন এবং তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। মহিলার স্বামীকে পুলিশ চিত্রকূট থেকে গ্রেফতার করে এবং তার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

    যাদব আরও বলেন, ছ'বছর আগে বিয়ে হয়েছিল ওই দম্পতির। গত বছর মহিলা দিল্লির একটি বেসরকারি ফার্মে কাজে যোগ দেন। তখন মহিলার স্বামী গ্রামে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু চাকরি ছেড়ে দিয়ে মহিলা গ্রামে ফিরতে রাজি ছিলেন না। সেই নিয়েই স্বামী-স্ত্রী’র মধ্যে ঝগড়ার সূত্রপাত। অভিযুক্ত তার চিত্রকূটের বাড়িতে ফিরে আসে। এবং কিছু দিন পরে তাদের চার বছরের একমাত্র ছেলেকে নিজের কাছে নিয়ে আসে। কিন্তু মহিলা ফেরেননি, তিনি দিল্লিতে থেকেই কাজ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। তবে, গতবছর করোনা পরিস্থিতিতে মহিলা গ্রামের বাড়িতে ফিরতে চেয়েছিলেন। লকডাউনের সময় কিছুদিন বাবা-মার কাছে ছিলেন। তারপর গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে ছেলের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। পরে নিজের বাড়ি দিল্লিতেই ফিরে আসেন এবং কখনই গ্রামে ফিরবেন না বলে জানিয়েছিলেন। তারপরে রবিবার দিন এই ভয়ানক ঘটনাটি ঘটে। অভিযুক্ত এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। ওই মহিলা আগের তুলনায় ভাল আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।


    Published by:Somosree Das
    First published: