• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • DEBJANI MUKHERJEE GETS BAIL IN SARADA CHIT FUND CASE DMG

সারদা মামলায় জামিন পেলেন দেবযানী, তবে থাকতে হচ্ছে জেলেই

সুদীপ্ত সেন এবং দেবযানী মুখোপাধ্যায়৷

সারদা গোষ্ঠীর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর পদে ছিলেন দেবযানী)৷ সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের পর সংস্থায় সবথেকে ক্ষমতাবান ছিলেন দেবযানী (Debjani Mukherjee)৷

  • Share this:

#কলকাতা: এ রাজ্যে সারদা কেলেঙ্কারিতে তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া সব মামলায় জামিন পেলেন দেবযানী মুখোপাধ্যায়৷ এ দিন কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দালের ডিভিশন বেঞ্চে সিবিআই মামলায় জামিন পান দেবযানী৷ যদিও এখনই জেল মুক্তি ঘটছে না তাঁর৷ কারণ এখনও ওড়িশা এবং অসমে দায়ের হওয়া দু'টি মামলায় এখনও জামিন পাননি সারদার সর্বময় কর্ত্রী দেবযানী৷

সারদা গোষ্ঠীর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর পদে ছিলেন দেবযানী৷ সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের পর সংস্থায় সবথেকে ক্ষমতাবান ছিলেন দেবযানী৷ সারদা কেলেঙ্কারি প্রকাশ্যে আসার পর ২০১৩ সালের ২২ এপ্রিল সুদীপ্ত সেনের সঙ্গেই কাশ্মীর থেকে ধরা পড়েন দেবযানী৷ ২০১৪ সালে সারদা ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস-এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়৷ গ্রেফতারির পর থেকেই জেলে রয়েছেন দেবযানী মুখোপাধ্যায়৷ গোটা রাজ্যে দেবযানীর বিরুদ্ধে একশোর বেশি মামলা দায়ের হয়েছিল৷

২০১৩ সালে প্রকাশ্যে এসেছিল সারদা চিট ফান্ড কেলেঙ্কারির ঘটনা৷ বাজার থেকে কয়েক হাজার কোটি টাকা তোলার অভিযোগ ওঠে সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেনের বিরুদ্ধে৷ গ্রেফতারি এড়াতে দেবযানী মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে গাড়িতে করে কলকাতা থেকে পালিয়েছিলেন সুদীপ্ত সেন৷ শেষ পর্যন্ত রাজ্য পুলিশের হাতে গ্রেফতার করা হয় সুদীপ্ত সেন, দেবযানী মুখোপাধ্যায়দের৷ পরবর্তী সময়ে মামলার তদন্ত ভার হাতে নেয় সিবিআই এবং ইডি-র মতো কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷

রাজ্যের সব মামলায় জামিন পেলেও এখনও রাজ্যের বাইরে আরও দু'টি মামলা ঝুলে রইল দেবযানীর বিরুদ্ধে৷ ফলে  জেল মুক্তির জন্য এখনও অপেক্ষা করতে হবে তাঁকে৷ এর মধ্যে গুয়াহাটিতে ইডি-র দায়ের করা মামলার পাশাপাশি ওড়িশাতেও তাঁর বিরুদ্ধে একটি মামলা চলছে৷

দেবযানীর আইনজীবী সাবির আহমেদ এবং অয়ন চক্রবর্তী জানান, '২ লক্ষ টাকার বন্ডে জামিন দিয়েছে আদালত। নিজের ঠিকানায় দেওয়া থানা এলাকার বাইরে তিনি যেতে পারবেন না। সপ্তাহে একদিন তদন্তকারী অফিসারের সঙ্গে দেখা করতে হবে।'

Published by:Debamoy Ghosh
First published: