ক্রাইম

corona virus btn
corona virus btn
Loading

একবালে খুন! নিজের প্রেমিকাকে খুন করল অভিযুক্ত 

একবালে খুন! নিজের প্রেমিকাকে খুন করল অভিযুক্ত 

রোমহর্ষক খুন, হার মানাবে ফিলমের চিত্রনাট্যকেও৷

  • Share this:

#কলকাতা: শুক্রবার নামাজ পড়ার সময় সাধারণত এলাকা ফাঁকাই থাকে সব সময়। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে শহরে দুপুর বেলায় খুন করা হল এক ৪৫ বছরের মহিলাকে। তার সঙ্গে থাকা দুই কন্যাকেও খুনের চেষ্টা করা হয়।  শুক্রবার দুপুর ১২ নাগাদ সবাই নামাজ পড়তে যাওয়ায় ফাঁকাই ছিল একবালপুরের ডাক্তার  সুধীর বোস রোড। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অভিযুক্ত চার তলা বহুতলের তৃতীয় তলের আকদা খাতুনের ঘরে ঢুকে যান। অভিযোগ ঘরের মধ্যে থাকা আকদাকে মারধর  শুরু করেন অভিযুক্ত।

পরে সামনে থাকা ভারী বস্তু দিয়ে আঘাত করা হয়। এই ঘটনা চোখের সামনে দেখে ছুটে আসে দুই মেয়ে।  আকদার ২০ বছরের মেয়েকে মারধর করার পাশাপাশি মাথাতে আঘাত করা হয়। আকদার মাটিতে লুটিয়ে পড়ে, তার পাশের ঘরেই অন্য মেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। দিদি ও মা-য়ের এই অবস্থা দেখে ১৭ বছরের অন্য আরও এক মেয়ে ছুটে এলে একইভাবে বেধড়ক মারধর করা হয়।  অভিযুক্ত এই ঘটনা ঘটিয়ে ঢিল ছোঁড়া দুরত্বে পৌঁছে যান একবালপুর থানায়।  থানায় থাকা তদন্তকারী অফিসারকে সমস্ত ঘটনা জানালে অভিযুক্ত সুলতান আনসারিকে গ্রেফতার করে একবালপুর থানা। তার মধ্যেই থানায় খবর আসে সুধীর বোস রোডে কিছু হয়েছে।

স্থানীয়রা আকদার আর্তনাদ শুনে দৌড়ে এসে দেখেন রক্তে ভেজা মেঝে ও বিছায় পড়ে তিনজন। তৎক্ষনাৎ খবর দেওয়া হয় থানায়। ঘটনাস্থল থেকে তিনজনের দেহ উদ্ধার করা হলেও হাসপাতালে গিয়ে মারা যান আকদা খাতুন। এখনো আকদার দুই কন্যার অবস্থা আশঙ্কাজনক। অভিযুক্ত সুলতান আনসারিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়,  আকদার বড় মেয়ের সঙ্গে বিয়ে হবার কথা হয়েছিল সুলতানের। আকদার স্বামীর দূর সম্পর্কের ভাই সুলতান আনসারি। আকদা ও তার স্বামী সুলতানের সঙ্গে বড় মেয়ের বিয়ে দিতে নারাজ ছিলেন। বিয়ের কথা বললেই সুলতান আনসারিকে অপমান করা হত। তাতেই রেগে জেতেন অভিযুক্ত।

পরিকল্পনা করেই শুক্রবার দুপুরে খুন করার কথা ভাবেন। ঘরের মধ্যে বচসা ও মারামারি হবার পরেই নৃশংসভাবে খুন ও খুনের চেষ্টা করা হয় তিনজনকে। অভিযুক্ত জানায় খুনের সময় রান্না ঘরে ব্যবহারের সামগ্রী ভারী বস্তু ব্যবহার করেছেন। পুলিশের সন্দেহ যেভাবে তিনজনকে দেহের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করা হয়েছে, তাতে ধারালো অস্ত্রের ব্যবহার করা হয়েছে। পুলিশ ভারী বস্তু উদ্ধার করলেও ধারালো অস্ত্রে মর সন্ধানে।  দফায় দফায় পুলিশ অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করে একদিকে অস্ত্রের হদিস ও আর কেউ আছে কিনা জানতে চায়। শনিবার অভিযুক্তকে আলিপুর কোর্টে তোলা হবে।

Susovan Bhattacharjee

Published by: Debalina Datta
First published: September 26, 2020, 1:11 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर