• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • ALLEGATION OF RAPE AND THEN POISONING MADHYAMIK STUDENT TO DEATH IN SAMSERGANJ PBD

মাধ্যমিকের ছাত্রীকে ধর্ষণেও শেষ হল না অত্যাচার, কীটনাশক খাইয়ে মেরে ফেলার অভিযোগ সামশেরগঞ্জে

হাসপাতালে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তার।

হাসপাতালে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তার।

  • Share this:

    #মুর্শিদাবাদ: বাড়ি এসে মাঝেমধ্যেই জোর করে বিয়ে করা সহ বিভিন্ন বিষয়ে হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি চলত কটূক্তি। বাঁধা দেওয়ার পরিণতি হল ভয়াবহ! অল্প বয়সের কারণে বিয়ে দিতে না চাওয়ায় কাজ সেরে স্কুল থেকে বাড়ির ফেরার ধর্ষণ করা হয় মাধ্যমিকের ছাত্রীকে৷ পাশাপাশি বন্ধুদের সাথে নিয়ে ১৭ বছরের এক ছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে কীটনাশক খাইয়ে খুন করার অভিযোগও উঠল দুই যুবকের বিরুদ্ধে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল ছাত্রী, পরে তার মৃত্যু হয়। ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে সামসেরগঞ্জ থানার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে সামসেরগঞ্জ মাঠপাড়া গ্রামে। বাণীচাঁদ আগরওয়াল স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র ছিল সে। ঘটনার পর থেকেই হিজলতলা গ্রামের অভিযুক্ত যুবক বাপি শেখ ও তার বন্ধু পলাতক।

    ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, বেশ কিছুদুন থেকেই হিজলতলার যুবক বাপি শেখ বাড়ি এসে বিয়ের প্রস্তাব সহ বিভিন্ন ভাষায় গালিগালাজ করছিল। পরিবারের সঙ্গে একাধিকবার ঝামেলা হয় সেকারণে৷ অভিযোগ, সোমবার দুপুর নাগাদ স্কুলে পরীক্ষা সংক্রান্ত কাগজপত্র জমা দেওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে দেড় কিলোমিটার দূরত্বে থাকা বাণীচাঁদ আগরওয়াল স্কুলে যায় ওই ছাত্রী। আসার পথে ওই যুবক তার বন্ধুর সহযোগিতায় অন্যত্র নিয়ে গিয়ে তাকে গলা টিপে কীটনাশক খাইয়ে দেয়। তারপরেই রাত আটটা নাগাদ বাড়ির কাছে একটি জায়গায় ছেড়ে চলে যায় অভিযুক্তরা। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে স্থানীয় অনুপনগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে জঙ্গিপুর মহুকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

    হাসপাতালে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তার। পুলিশ দেহ ময়নাতদন্তে পাঠায়। অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছে পরিবার। তবে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এর পরই নিশ্চিত হওয়া যাবে৷ তবে ছাত্রীর শরীরে যে ক্ষত ছিল, তা দেখেই ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে৷ পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

    Published by:Pooja Basu
    First published: