বাংলা থেকে রেলপথে মদ পাচার হচ্ছে বিহারে !

বাংলা থেকে রেলপথে মদ পাচার হচ্ছে বিহারে !
  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: এ রাজ্য থেকে রেলপথে মদ পাচার হচ্ছে বিহারে। কখনও লঙ্কার বস্তায়, কখনও বা অন্যান্য সবজির মধ্যে লুকিয়ে পাচার হচ্ছে বিদেশি মদ।বর্ধমান, দুর্গাপুর, আসানসোল থেকে বিহারের ওপর দিয়ে যাওয়া দূরপাল্লার ট্রেনে তা পাচার করা হচ্ছে।

বিলেতি মদ পাচারের সময় বর্ধমান রেল স্টেশনে রেল পুলিশের হাতে ধরা পড়লো দু'জন। ধৃত দুই যুবকের নাম অশোককুমার রায় ও রাজকুমার রায়।দুজনেই বিহারের বাসিন্দা। রাজকুমারের বাড়ি পাটনায়। অশোকের বাড়ি বৈশালীতে। বুধবার গভীর রাতে বর্ধমান স্টেশনের ২ নম্বর প্লাটফর্ম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। ধৃতরা দুটি সবজি ব্যাগ নিয়ে ট্রেন ধরার অপেক্ষায় ছিল।

আরপিএফ কর্মীরা সেসময় রুটিন তল্লাশি চালাচ্ছিল। সে সময় সন্দেহ হওয়ায় তারা ব্যাগ দুটিতে তল্লাশি চালায়।তখনই দুটি ব্যাগ থেকে মোট ১১০ বোতল মদ উদ্ধার হয়। এরপর আরপিএফ ধৃতদের রেল পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ধৃতদের বৃহস্পতিবার বর্ধমান আদালতে তোলা হয়।

রেল পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিহারে মদ বিক্রি নিষিদ্ধ হওয়ার পর এরাজ্য থেকে সেখানে মদ পাচারের প্রবণতা বাড়ছে। সেখানে মদ বিক্রি বন্ধ থাকলেও কালো বাজারে তার চাদিহা আকাশ ছোঁয়া। সে জন্যই এখান থেকে মদ নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

জানা গিয়েছে, বিভিন্ন পাচার চক্র এই কাজে সক্রিয়। তাদের লোকেরা এরাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছে। তারা মদ কিনে কেরিয়ারদের হাতে দেয়। সেইসব বাহকরা সবজির আড়ালে মদের বোতল ঢুকিয়ে তা ট্রেনের সিটের তলায়, বাথরুমে বা বাথরুমের পাশের প্যাসেজে সে সব বস্তা রাখে। ট্রেনে তল্লাশির সময় অনেক ক্ষেত্রেই সেসব কেরিয়ারদের ধরা যায় না।

চার-পাঁচশো টাকা পারিশ্রমিকে কাজ করে এক একজন কেরিয়ার। তারা সাধারণত রাতের ট্রেন বেছে নেয় যাতে ভোর হওয়ার আগেই বিহারে পৌঁছে যাওয়া যায়। অপেক্ষাকৃত ছোট স্টেশন যেখানে রেল পুলিশের নজরদারি কম সেইসব স্টেশনগুলিতে নামানো হয় মদ বোঝাই সবজির বস্তা। অনেক ক্ষেত্রে মাঝরাস্তায় কেরিয়ার বদলও হয়।

First published: December 12, 2019, 6:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर