ক্রাইম

corona virus btn
corona virus btn
Loading

মদ খেয়ে প্রবল শারীরিক-মানসিক অত্যাচার করে বউ, নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ 'বেচারা' স্বামী

মদ খেয়ে প্রবল শারীরিক-মানসিক অত্যাচার করে বউ, নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ 'বেচারা' স্বামী
প্রতীকী ছবি

মদ খেয়ে প্রবল শারীরিক এবং মানসিক অত্যাচার করে স্ত্রী। বহু অনুরোধ সত্বেও কোনও কথাই কানে তোলে না। কমে না অত্যাচারের মাত্রা। তাই পুলিশের দ্বারস্থ স্বামী।

  • Share this:

#আহমেদাবাদ: মদ খেয়ে প্রবল শারীরিক এবং মানসিক অত্যাচার করে স্ত্রী। বহু অনুরোধ সত্বেও কোনও কথাই কানে তোলে না। কমে না অত্যাচারের মাত্রা। উপরন্তু তাঁদের বিরুদ্ধেই পুলিশে নাকি নালিশ জানিয়েছে নির্যাতনের অভিযোগে। এবার তাই বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন স্বামী। খানিক ব্যতিক্রমী ঘটনাটি ঘটেছে আহমেদাবাদের মনিনগরের খোকরা এলাকায়। স্ত্রীর আচরণে তিতিবিরক্ত ওই ব্যক্তি খোকরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

দীর্ঘদিন প্রেম করার পর ২০১৮ সালের মার্চ মাসে তৎকালীন প্রেমিকা অর্থাৎ বর্তমান স্ত্রীর সঙ্গে বিয়ে হয় ২৯ বছর বয়সী ওই যুবকের। তাঁর দাবি, বিয়ের আগে তিনি স্ত্রীর মাদকাসক্তির কথা জানতেন না। বিয়ের পরে ধীরে ধীরে তা বুঝতে পারেন। অভিযোগকারী পুলিশকে জানিয়েছেন, শুধুমাত্র তাঁকেই নয়। মদ্যপ অবস্থায় স্ত্রী তাঁর বাবা-মাকেও শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করে। কটূক্তি করে। এমনকি, নেশার ঘোরে প্রবল মারধর করে। যুবকের অভিযোগ, যত দিন যাচ্ছে অত্যাচারের মাত্রা ততই বেড়ে চলেছে। তাই একপ্রকার বাধ্য হয়েই তিনি পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন নিরাপত্তা চেয়ে।

খোকরা থানায় ওই যুবক নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন। তাঁর দাবি, বাড়িতে অশান্তি হলেই স্ত্রী তাঁর ওপর চড়াও হয়। মদ্যপ অবস্থায় তাঁর কর্মস্থলে গিয়েও তাণ্ডব করে। চিৎকার, চেঁচামেচি করে তাঁকে অপ্রস্তুতে ফেলে। সেই সব অশান্তি আর সহ্য করতে পারছে না পরিবার। তিনি নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন, সেখান থেকেই পুলিশের দ্বারস্থ হন এ দিন।

কিন্তু কেন এই অশান্তি? যুবক জানিয়েছেন, স্ত্রী প্রথম থেকেই তাঁর বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকতে নারাজ। তাই তাঁদের তাড়ানোর জন্য বহু ফন্দি করেছে। তাঁরা আলাদাও হয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু জুন মাসে করোনা আক্রান্ত হন বাবা-মা। সেই সময় বাবা-মায়ের দেখাশুনা করার জন্য তিনি ফের বাড়িতে ফিরে আসেন। তারপরে ফের শুরু হয় অশান্তি। বাবা-মা অসুস্থ থাকলেও, তাঁদের দিকে ফিরে তাকায়নি। তার ওপর এবারে আবার বাড়ির ভাগ চাইতে শুরু করে স্ত্রী। যুবকের দাবি, অশান্তি বাড়াতে জুন মাসে তাঁর স্ত্রী খোকরা থানায় তাঁদের তিনজনের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করে। ১১ সেপ্টেম্বর আবারও পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান। মহিলা হেল্পলাইনে ফোন করে মিথ্যা অভিযোগ জানান। এরপরেই নিরাপত্তা চেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন যুবক। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: September 19, 2020, 4:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर