ওষুধ কিনতে বেরিয়েছিল কিশোরী, দুই যুবক তুলে নিয়ে ফাঁকা ঘরে চালায় অত্যাচার, তারপর...

ওষুধ কিনতে বেরিয়েছিল কিশোরী, দুই যুবক তুলে নিয়ে ফাঁকা ঘরে চালায় অত্যাচার, তারপর...

Photo-Representative

নক্কারজনক কাজ করে কিশোরীকে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রেখে যায় হাসপাতালের সামনে৷

  • Share this:

#ইসলামপুর:  ওষুধ কিনতে যাবার সময় এক কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধর্ষনের অভিযোগে  মনজুর নামে এক যুবককে গ্রেফতার করল ইসলামপুর থানার পুলিশ।ধৃতকে শুক্রবার ইসলামপুর মহকুমা আদালতে পেশ করেছে ইসলামপুর থানার পুলিশ।

গত ৬ এপ্রিল ইসলামপুর থানার রুইয়া গ্রামের এক কিশোরীকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। জানা গেছে,এদিন সকালে কিশোরী ওষুধ কিনতে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল। ওষুধের কিনতে যাবার আগেই দুই যুবক তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। রেল লাইনের পাশে একটি ফাকা ঘরে নিয়ে গিয়ে তাকে  ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। অভিযুক্তরা রক্তাক্ত অবস্থায় কিশোরীকে সেখান থেকে তুলে নিয়ে হাসপাতালের সামনে ফেলে রেখে চলে যায় । দীর্ঘক্ষন কিশোরী বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকেরা তাকে খোঁজাখুজি শুরু করেন।ইসলামপুর হাসপাতালের সামনে কিশোরীকে রক্তাক্ত অবস্থায়  পড়ে থাকতে দেখেন।অচৈতন্য অবস্থায় কিশোরীকে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ইসলামপুর গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য মহম্মদ ইউসুফ জানান, দুষ্কৃতীরা রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে রেল লাইনের ধারে একটি ঘরের মধ্যে নিয়ে ধর্ষণ করে। রক্তাক্ত অবস্থায় কিশোরীকে হাসপাতালের সামনে ফেলে রেখে যায়।পরিবারের লোকেরা তাকে খোঁজ করতে গিয়ে হাসপাতালের সামনে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।পরিবারের পক্ষ থেকে  দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে ইসলামপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্ত মনজুরকে আজ ইসলামপুর থানার পুলিশ গ্রেফতার করেছে। অত্যাচারী কিশোরী  জানিয়েছিলেন গ্রামের এক  যুবক ও তার এক বন্ধু রাস্তাতেই তাঁকে টেনে গাড়িতে তোলে। সেখান থেকে তারা স্টেশনের পাশে একটি ফাঁকা ঘরে নিয়ে এসে খারাপ কাজ করেন। চিৎকার করার চেষ্টা করলে তারা মুখ চেপে ধরে। পুলিশের কাছে অভিযুক্তদের নাম বলা হয়েছে।যারা এই ঘটনায় যুক্ত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছয়দিনের পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে ইসলামপুর মহকুমা আদালত। পুলিশ সুপার শচীন মক্কার জানিয়েছেন, অত্যাচারি কিশোরীর বাবা লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published:

লেটেস্ট খবর