ক্রাইম

corona virus btn
corona virus btn
Loading

নির্ভীক সাংবাদিকতার দাম দিলেন নির্ভীক, উত্তরপ্রদেশে স্যানিটাইজার দিয়ে পুড়িয়ে সাংবাদিক হত্যায় গ্রেফতার ৩

নির্ভীক সাংবাদিকতার দাম দিলেন নির্ভীক, উত্তরপ্রদেশে স্যানিটাইজার দিয়ে পুড়িয়ে সাংবাদিক হত্যায় গ্রেফতার ৩

খুনের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা হলেন রিঙ্কু মিশ্র (পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলে), ললিত মিশ্র এবং আক্রম। এদের মধ্যে আক্রমের অসামাজিক কাজের পুরনো ট্র্যাক রেকর্ড রয়েছে।

  • Share this:

#লখনউ: নির্ভীক সাংবাদিকতার দাম দিলেন রাকেশ সিং নির্ভীক। যোগীরাজ্যে খুন হওয়া সাংবাদিক ও তার বন্ধুর মৃত্যু তদন্তে সোমবার পুলিশ জানিয়েছে, খুনের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা হলেন রিঙ্কু মিশ্র (পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলে), ললিত মিশ্র এবং আক্রম। এদের মধ্যে আক্রমের অসামাজিক কাজের পুরনো ট্র্যাক রেকর্ড রয়েছে। পুলিশ মনে করছে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবেই খুন করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রীয় স্বরূপ নামক পত্রিকার সাংবাদিক রাকেশ সিং নির্ভীক এবং তার বন্ধু পিন্টুকে । সাংবাদিক রাকেশ সিং এবং তার বন্ধু পিন্টু সাহু হত্যার অপরাধে বাহাদুরপুর ক্রসিংয়ের নিকটবর্তী জঙ্গল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের ৷ পুলিশ সুপার বলরামপুর দেবরঞ্জন ভার্মা বলেছেন, এই তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর তারা তাদের অপরাধ স্বীকার করেছে। এসপি ভার্মা জানিয়েছেন যে, কেশবানন্দের মা একটি গ্রামের প্রধান এবং রাকেশ সিং তার অধীনে তহবিলের বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। অভিযুক্তরা এই বিষয় নিয়ে সিংয়ের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ হয়। এরপর আলাপ জমানোর অজুহাতে তার বাড়িতে যায়। সেখানে তারা সিং ও তার বন্ধুদেরকে মদ খাওয়াতে বাধ্য করে এবং পরে খুন করে। উদ্দেশ্য ছিল দেখে যেন মনে হয় আত্মহত্যা করেছেন তারা। ঘটনায় মূল অভিযুক্ত ছিলেন পঞ্চায়েত প্রধানের ছেলে। বলরামপুরে রাকেশ এবং পিন্টু যখন নিজেদের বাড়িতে ছিলেন তখন অতর্কিতে এই হামলা চালানো হয়। ঘটনাস্থলে পিন্টুর মৃত্যু হলেও লড়াই চালাচ্ছিলেন রাকেশ। রাকেশের দেহের ৯০ শতাংশ পুড়ে যায়।  পরে লখনউয়ের হাসপাতালে তিনি মারা যান। বলরামপুরের পুলিশ সুপার দেব রঞ্জন বর্মা জানিয়েছেন প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে রাকেশের সাংবাদিকতা এবং পিন্টুর সঙ্গে রিংকুর টাকা-পয়সার সমস্যা এর পেছনে মূল কারণ। কিছুদিন ধরেই ওই পঞ্চায়েত প্রধান এবং তার দুষ্কর্ম নিয়ে নিজের পত্রিকায় লিখেছিলেন নির্ভীক। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে হাসপাতালের বেডে শুয়ে নিজের এই অবস্থার জন্য পঞ্চায়েত প্রধানের দিকে আঙুল তুলছেন রাকেশ। পুলিশ জানিয়েছে আরো অনেককে দ্রুত জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পুলিশ সূত্রে খবর, রাকেশ সিং ও তার  স্ত্রীর মধ্যে কিছু সাংসারিক বিবাদের জেরে  ঘটনার দু'দিন আগে তার স্ত্রী ও সন্তানরা আত্মীয়ের বাড়িতে চলে যান। শুক্রবার রাতে বাড়ির মধ্যেই বিস্ফোরণ ঘটে যার ফলে একটি দেয়াল ভেঙে যায় এবং গোটা ঘরে আগুন ধরে যায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। এই ঘটনা নিহত সাংবাদিকের বাবা মুন্না সিংহের খুন বলে সন্দেহ হওয়ায় তিনি পুলিশি তদন্তের আর্জি জানান।

রবিবার সন্ধ্যায় পুলিশ জানিয়েছে, বিধায়ক পল্টুরামের সহায়তায়  নিহতের পরিবারের হাতে পাঁচ লাখ টাকার চেক দেওয়া হয়। নিহত সাংবাদিকের স্ত্রী বিভা সিংকে কর্মসংস্থানের আশ্বাস দিয়েছেন বলরামপুর চিনি মিলস পরিচালনা। এছাড়াও প্রশাসন জানিয়েছেন, নিহতের কন্যা যাতে নিখরচায় শিক্ষা লাভ করতে পারে সে বিষয়ে সুনিশ্চিত ব্যবস্থা করবেন তারা । চব্বিশ ঘন্টা পুলিশ গোটা পরিবারকে নিরাপত্তা দেবে ও এই ঘটনার তদন্ত করতে চারটি দল গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতার করতে না পারলে তিনি আত্মহত্যা করবেন, এমনই হুমকি দেন সাংবাদিকের স্ত্রী। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের জেলে পাঠানো হয়েছে।

Simli Dasgupta

Published by: Elina Datta
First published: December 1, 2020, 6:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर