• Home
  • »
  • News
  • »
  • crime
  • »
  • 22 ARRESTED FOR RUNNING FAKE AMAZON CUSTOMER SERVICE DUPING PEOPLE IN BENGAL SDG

Kolkata News|| সামনেই পুজো, অনলাইন শপিংয়ের আগে সাবধান! শহরে Amazon ভুয়ো কাস্টমার কেয়ারের হানা, গ্রেফতার ২২

কলকাতায় Amazon ভুয়ো কাস্টমার কেয়ারের হানায় গ্রেফতার ২২। প্রতীকী ছবি।

22 Arrested In West Bengal For Posing As Amazon Employees: জনপ্রিয় অনলাইন বানিজ্যিক সংস্থা অ্যামাজনের নামে ভুয়ো কাস্টমার কেয়ার চলছিল রমরম করে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হানা দেয় পুলিশ, গ্রেফতার হয় সংস্থার মালিক-সহ ২২ জন।

  • Share this:

    #কলকাতা: জনপ্রিয় অনলাইন বানিজ্যিক সংস্থা অ্যামাজনের নামে ভুয়ো কাস্টমার কেয়ার (Amazon customer care) চলছিল রমরম করে। তা থেকে প্রতারিতও হচ্ছিলেন দেশ এবং বিদেশের বহু মানুষ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আসরে নামে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (Kolkata Police’s Detective Department) গুন্ডাদমন শাখা (Anti-Rowdy section)। মঙ্গলবার দুপুর ৩ টে নাগাদ তল্লাশি চালিয়ে দক্ষিণ কলকাতার নিউ আলিপুরের (New Alipore) ২১/৫, বঙ্কিম মুখার্জি সরণির ওই কাস্টমার সার্ভিস সেন্টার থেকে গ্রেফতার হয় ২২ জন।  তল্লাশির সময় সঙ্গে ছিলেন সাইবার ক্রাইম থানার (Cyber PS)  আধিকারিকরাও।

    গোয়েন্দা বিভাগের আধিকারিকদের সূত্রে জানা গিয়েছে, তল্লাশির সময় কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারের বৈধ কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেনি অভিযুক্তেরা। প্রাথমিক জেরায় অভিযুক্তেরা জানিয়েছে, ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রোটোকল (Voice Over Internet Protocol communication system) অর্থাৎ বিশেষ প্রযুক্তির ব্যবহার করেই উপভোক্তাদের সঙ্গে কথা বলত তারা। নিজেদের অ্যামাজনের কর্মী (employees of Amazon) বলে পরিচয় দিত। কথোপকথনের সময় টোপ দেওয়া হত ক্যাশ ব্যাক বা টাকা উপহারের (gift money would be refunded)। এ ভাবেই বিশ্বাস অর্জন করে চলত প্রতারণা। জানা গিয়েছে, যারা প্রতারিত হয়েছেন, তাদের বেশিরভাগই অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা। অভিযুক্তেরা TeamViewer এবং Anydesk-র মতো সফটওয়্যার ব্যবহার করে উপভোক্তাদের সিস্টেম রিমোট নিত। তারপরেই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব হয়ে যেত টাকা।

    আরও পড়ুন: 'মদন কালারফুল ছেলে, কিন্তু বেশি সাজুগুজু করো না', চেতলার কর্মিসভায় পরামর্শ মমতার

    মঙ্গলবারের তল্লাশি অভিযানে গ্রেফতার করা হয় ভুয়ো সংস্থার দুই মালিক বেহালার নন্দনা পার্ক এলাকার বাসিন্দা করণ মিশ্র, অর্জুন মিশ্রকে। এ ছাড়াও গ্রেফতার হয় কাটোয়ার সলিল সিরাজ (২১),  চারু মার্কেটের বাসিন্দা অঙ্কিত রজক (২৭), পোস্তার কালীকৃষ্ণ রোডের বিবেক চাওলা (১৯), বাঁশদ্রোনির ব্রহ্মপুরের গগন সিং (২৬), হাওড়া গোলাবাড়ির রাজ গুপ্ত (২৫), গলফগ্রিনের ভিকি বিস্ত (২৫), বাঁশদ্রোনির সোনালি পার্কের পিনাকি বন্দ্যোপাধ্যায় (২৭), পর্ণশ্রীর বিপিন সিং (২১), সার্ভে পার্কের অভিলাষ চট্টোপাধ্যায় (২১), তিলজলার মহম্মদ শাহিল (২৩), প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোডের ঘনশ্যাম রায় (২২), লেক থানার চারু চন্দ্র প্লেসের প্রীতম বোস (২৬), সোনারপুরের দেবতোষ মিস্ত্রি (২৬), পর্ণশ্রীর রাজ শর্মা (২৩), ঠাকুরপুকুরের রীতেশ সাহা (২৪), নিউ আলিপুরের বিক্রম দাস (২২), চারু মার্কেটের অজয় পাল (২৩), বেহালার অভিষেক কুমার যাদব (২৬), চারু মার্কেটের মহম্মদ রিজওয়ান (২৭) এবং হরিদেবপুরের বাসিন্দা সুভাস রায় (২৫)।

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন তল্লাশি চালানোর সময় একাধিক কম্পিউটার অন ছিল, সেগুলি থেকে রীতিমতো কাজ চলছিল। জেরায় অভিযুক্তেরা জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার একটি দলকে সামনে রেখে এই অপারেশন চালাতো তারা। নিজেদের AMAZON কর্মী বলে পরিচয় দিত। উপভোক্তাদের সিকিউরিটি সফটওয়্যার ক্র্যাশ করে গিয়েছে, ফলে গিফটের টাকা তারা পাবেন না, জানিয়ে হাতিয়ে নিত নানা তথ্য। এরপর কম্পিউটার হ্যাক করে সেখান থেকে হাতিয়ে নিত টাকা। উপরন্ত, সিকিউরিটি সিস্টেম ঠিক করে দেওয়ার জন্য চার্জ করত ৭০ থেকে ২০০ অস্ট্রেলিয়ার ডলার। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নিউ আলিপুর থানায় আইটি অ্যাক্টের ৬৬, ৬৬সি, ৬৬ডি, ৮৪বি, ৪৩ ধারা-সহ ১২০বি, ৪১৯, ৪২০, ৪৬৫, ৪৬৭, ৪৬৮ এবং ৪৭১ ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। বুধবার ধৃতদের আলিপুর আদালতে পেশ করা হলে ১৪ অগাস্ট পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

    তথ্য সহায়তা: সুকান্ত মুখোপাধ্যায়

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: