পড়ুয়াদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে রোজ রোজ 'ইনজেকশন'! পুলিশের জালে কলেজ পড়ুয়া গৃহশিক্ষক

পড়ুয়াদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে রোজ রোজ 'ইনজেকশন'! পুলিশের জালে কলেজ পড়ুয়া গৃহশিক্ষক
পড়ুয়াদের স্মৃতিশক্তি বাড়াতে রোজ রোজ 'ইনজেকশন'! পুলিশের জালে কলেজ পড়ুয়া গৃহশিক্ষক। প্রতীকী ছবি।

কলেজ পড়ুয়া বছর কুড়ি-র যুবক টিউশন পড়াতেন এলাকার ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির পড়ুয়াদের। আর সেই পড়ানোর সময় পড়ুয়াদের ভালোর জন্য 'ইনজেকশন' দিতেন। চাঞ্চল্যকর অভিযোগ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: কলেজ পড়ুয়া বছর কুড়ি-র যুবক টিউশন পড়াতেন এলাকার ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির পড়ুয়াদের। আর সেই পড়ানোর সময় পড়ুয়াদের ভালোর জন্য 'ইনজেকশন' দিতেন। পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চাঞ্চল্যকর অভিযোগের ভিত্তিতে ওই কলেজ পড়ুয়া গৃহশিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রাথমিক জেরায় নিজের কৃতকর্মের কথা স্বীকার করে নিয়েছে ওই যুবক। অভিযুক্ত গৃহশিক্ষকের দাবি, তিনি নাকি ইউটিউবে দেখেছিলেন স্মৃতিশক্তি বাড়াতে 'স্যালাইন ইনজেকশন' অব্যর্থ। তাই পড়ুয়াদের ভালোর জন্য তিনি সেই ইনজেকশন প্রয়োগ করতেন তাদের ওপর।

    অভিযুক্ত গৃহশিক্ষকের নাম সন্দীপ। তিনি কলা বিভাগের কোনও একটি বিষয় নিয়ে স্নাতক স্তরে পড়ছেন। থাকেন পূর্ব দিল্লির মান্ডাওয়ালি থানা এলাকায়। সেখানেই এলাকার ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির পড়ুয়াদের পড়াতেন। স্থানীয় এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি (যাঁর সন্তানকেও ওই শিক্ষক পড়াতেন) পুলিশকে ফোন করে প্রথম বিষয়টি জানান। এরপরেই অভিযুক্ত শিক্ষকে হাতে-নাতে গ্রেফতার করা হয়। মান্ডাওয়ালি থানার সাব ইনস্পেক্টর অজিত জানিয়েছেন, ঘটনার খপবর পেয়েই তিনি তড়িঘিড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছন। জিজ্ঞাসাবাদ করতেই নিজে মুখে ইনজেকশন দেওয়ার কথা স্বীকার করে নেয় সন্দীপ। এরপরেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

    জেরায় সন্দীপ জানিয়েছে, ইনজেকশন দেওয়ার বিষয়টি সে ইউটিউব দেখে জেনেছে। সাধারণ স্যালাইন দেওয়া এই ইনজেকশনে নাকি পড়ুয়াদের স্মৃতিশক্তি বাড়ে। পুলিশ ধৃত ওই গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে ৩৩৬ ধারায় (endangering human life by the negligent act) মামলা রুজু করেছে।


    Published by:Shubhagata Dey
    First published: