ক্রাইম

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

কানপুরে ৮ পুলিশকর্মীর হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার বিকাশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ২ পুলিশকর্মী!

কানপুরে ৮ পুলিশকর্মীর হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার বিকাশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ২ পুলিশকর্মী!
Eight policemen were killed while they were going to arrest notorious local criminal Vikas Dubey.

গত ২দিন ধরে এই ২ পুলিশকর্মীকে লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল৷ গ্যাংস্টার বিকাশ যাদবের সঙ্গে এই ২ পুলিশকর্মীর যোগ ছিল বলে সন্দেহ ছিল প্রথম থেকেই৷ শেষ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হল তাদের৷

  • Share this:

#কানপুর: কানপুর কাণ্ডে পুলিশের জালে ২ পুলিশকর্মী! গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের সঙ্গে এদের নিয়মিত যোগাযোগ ছিল বলে অভিযোগ৷ গত সপ্তাহে বিকাশের দলবলের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে প্রাণ যায় ৮ পুলিশকর্মীর৷ তারপর থেকেই পলাতক বিকাশ৷ বুধবার সকালে পুলিশের সঙ্গে এনকাউন্টারে মারা গিয়েছে বিকাশের ডান হাত অমর দুবে৷

যে ২ পুলিশকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে তারা হলেন চৌবেপুর থানার প্রাক্তন স্টেশন হাউজ অফিসার বিনয় তিওয়ারি এবং বিট ইন চার্জ কে কে শর্মা৷ বিকাশ দুবেকে গ্রেফতার করতে যে পুলিশের টিম গিয়েছিল, তাতে এরা দু’জনেই সামিল ছিলেন৷ তবে এনকাউন্টারের সময় এরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন, জানান কানপুরের রেঞ্জ ইন্সপেক্টর জেনারেল মোহিত আগরওয়াল৷

গত ২দিন ধরে এই ২ পুলিশকর্মীকে লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিল৷ গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের সঙ্গে এই ২ পুলিশকর্মীর যোগ ছিল বলে সন্দেহ ছিল প্রথম থেকেই৷ শেষ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হল তাদের৷

বিকরু গ্রামে বিকাশ দুবের বাড়ি পৌঁছনোর পর থেকে শুরু হয় পুলিশ ও গ্যাংস্টার বিকাশের দলের গুলির লড়াই৷ সেই গুলির লড়াইয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ গিয়েছে ৮ পুলিশকর্মীর৷ আর এই ঘটনায় তিওয়ারি ও শর্মাকে রবিবার সাসপেন্ড করা হয়৷ আর তারপর গ্রেফতার৷

প্রমাণ মিলেছে যে সেই দিন বিকাশের বাড়িতে পুলিশ পৌঁছনোর খবর এই দুই পুলিশকর্মী বিনয় তিওয়ারি ও কেকে শর্মাই গ্যাংস্টারকে জানিয়েছিলেন৷ তাই বিকাশও সজাগ হয়ে গিয়েছিলেন এবং পাল্টা হামলার জন্য প্রস্তুত ছিলেন৷

বুধবার সকালে চৌবেপুরের ৮ পুলিশ খুনে অভিযুক্ত বিকাশ দুবের ডান হাত অমর দুবেকে খতম করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের বিশেষ ব্রাঞ্চ৷ বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দুষ্কৃতীদের সঙ্গে পুলিশের গুলির লড়াইয়ের পর থেকেই বেপাত্তা মূল অভিযুক্ত বিকাশ৷ এবার তার সঙ্গী এবং খুবই ঘনিষ্ঠ অমরের মৃত্যু হল পুলিশের এনকাউন্টারে৷ হামিরপুরে বুধবার সকাল থেকে দু’পক্ষের গুলির লড়াই শুরু হয়৷ অমরকে ঘিরে ধরে পুলিশ৷ শেষ পর্যন্ত হার মানতে হয় দুষ্কৃতীকে৷

পুলিশ সূত্রের খবর, বুধবার সকাল ৬.৩০ মিনিটে শুরু হয় এনকাউন্টার৷ পুলিশের কাছে খবর ছিল যে, মৌধে এক আত্মীয়র বাড়িতে লুকিয়ে রয়েছে অমর৷ এর আগে ফরিদাবাদে গা ঢাকা দিয়েছিল সে কিন্তু উত্তরপ্রদেশের এসটিএফের চাপে সেখান থেকে পালাতে বাধ্য হয় অমর৷ চলে আসে মৌধে৷ সেখানেই পুলিশ তাকে ঘিরে ধরে৷

 
Published by: Pooja Basu
First published: July 8, 2020, 8:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर