নিউ মার্কেটে ব্যবসায়ী খুনে গ্রেফতার দুই অভিযুক্ত, কলকাতা পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখা

বুধবার ঝাড়খণ্ডের মিহি জাম থানার পুলিশ জানায় জামতারা ক্ষেতের মধ্যে গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়েছে |

বুধবার ঝাড়খণ্ডের মিহি জাম থানার পুলিশ জানায় জামতারা ক্ষেতের মধ্যে গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়েছে |

  • Share this:

# কলকাতা : নিউ মার্কেটে সইফ খান নামে  ব্যাবসায়ীর জামতারাতে গলা কেটে খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ২|  গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখার অধিকারিকরা | উদ্ধার খুনে ব্যবহৃত হওয়া গাড়ি | গোয়েন্দা সুত্রে খবর, যে গাড়িতে করে ওই ব্যবসায়ীকে কলকাতা থেকে ঝাড়খণ্ডে জামতারাতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেই গাড়ির হদিশ মেলে ধৃতদের জেরা করে | ধৃতদের  নাম, আফতাব আলম ও নাজারে আলম | বেনিয়াপুকুর ও নারকেলডাঙা থেকে গ্রেফতার অভিযুক্তরা |

ধৃতদের ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হলে ২৪ অগাস্ট পর্যন্ত ট্রানসিট রিমান্ডের নির্দেশ দেয় ব্যাঙ্কশাল আদালত | মিহিজাম থানার আধিকারিকরা এদিন নিউ মার্কেট থানায় আসেন | এদিনই ধৃতদের নিয়ে যাওয়া হয় ঝাড়খণ্ডে |কেন খুন করা হলো? গোয়েন্দা সুত্রে খবর, ব্যবসায়িক কারণে অভিযুক্তরা নিহত সাইফের  পরিচিত| অভিযুক্তরা সইফের থেকে প্রায় পনেরো লক্ষ টাকা ধার নেয় | কিছু টাকা ফেরত দিলেও প্রায় দু -তিন লক্ষ টাকা শোধ দেওয়া বাকি ছিল| সইফ সেকারণে টাকা ফেরতের  জন্য অভিযুক্ত দেরকে চাপ দিছিলো | তখনই ক্রাইম থ্রিলার দেখে ঠান্ডা মাথায় খুনের পরিকল্পনা করে আততায়ীরা|

এরপরই  টাকা ফেরত দেবার অছিলায় মঙ্গলবার ডেকে নেয়  সইফকে | সইফ টাকা নিতে দেখা করে অভিযুক্তদের সঙ্গে| কীভাবে খুন করা হয়েছিল? গোয়েন্দা সুত্রে খবর, মঙ্গলবার সইফ খান বাড়ি থেকে বের হন সন্ধেতে | আফতাব আলম ও নাজারে আলমের  সঙ্গে দেখা করে সইফ| এরপর বিয়ারে মধ্যে ঘুমের ওষুধ  মিশিয়ে সইফকে খাইয়ে দেয় | সইফ অচৈতন্য হতেই গাড়িতে তুলে নিয়ে ঝাড়খণ্ডে  পৌঁছে যায় | সেখানে হাই ওয়ে পাশে জামতারায় একটি ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে গিয়ে ধারালো চাকু  দিয়ে মাথার পিছনে চুলের মুঠি ধরে গলা কেটে নৃশংসভাবে হত্যা করে | এরপর মিহি জাম থানার পুলিশ ওই ক্ষেতের  মধ্যে  থেকে গলা কাটা  দেহ উদ্ধার করে| সইফের পকেটে স্কুটির চাবি ছিল |  সেখানে চাবির রিংয়ের কলকাতার দোকানে ঠিকানা পায় পুলিশ | এরপর ওই দোকানে ফোন করে সাইফের বাড়ির ঠিকানা ও ফোন নম্বর  পায় মিহি জাম থানার পুলিশ |

মঙ্গলবার সাইফ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি | বুধবার মিহি জাম থানার পুলিশ বাড়ির লোককে খবর দেয় যে  সাইফকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে | পরিবারের সদ্যস্যরা শনাক্ত করেন দেহ | তদন্তে নাম মিহি জাম থানা |  যোগাযোগ করে নিউ মার্কেট থানাতেও | কলকাতা গুন্ডা দমন শাখার আধিকারিকরা খোঁজ করতে থাকেন কি করে ওই ব্যাবসায়ী  কলকাতা থেকে জামতারা পৌছালো | ওখানে কে বা কারা খুন করল | কারণ মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন রাত ৯টা ১৮ মিনিট পর্যন্ত  খিদিরপুরে পাওয়া গিয়েছে| গুণ্ডা দমন শাখা মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন ও ইলেকট্রনিক্স সার্ভিলেন্স দ্বারা অভিযুক্তদের শুক্রবার রাতে বেনিয়াপুকুর ও নারকেলডাঙ্গা  থেকে গ্রেফতার করে দুই অভিযুক্তকে | নিহতের  দাদা কায়েস খান জানিয়েছেন, " দোষীরা যেন কঠোর শাস্তি পায় | সারা জীবন যেন এরকম কষ্ট ভোগ করে | ভাইকে যেভাবে নৃশংস ভাবে হত্যা করেছে আমরা কঠিন শাস্তি চাই |"প্রসঙ্গত মঙ্গলবার  রাফি আহমেদ  কিদওয়াই রোডের ব্যাবসায়ী সাইফ খান সন্ধেতে বেরোন | কিন্তু রাতে ফেরেননি |

বুধবার ঝাড়খণ্ডের  মিহি জাম থানার পুলিশ জানায় জামতারা ক্ষেতের মধ্যে গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়েছে | এরপরই মিহি জাম থানা পরিবার  ও নিউ মার্কেট থানার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে |  সেই ঘটনায় গ্রেফতার দুই অভিযুক্ত  কলকাতা থেকে | ARPITA HAZRA

Published by:Debalina Datta
First published: