Home /News /crime /
নিউ মার্কেটে ব্যবসায়ী খুনে গ্রেফতার দুই অভিযুক্ত, কলকাতা পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখা

নিউ মার্কেটে ব্যবসায়ী খুনে গ্রেফতার দুই অভিযুক্ত, কলকাতা পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখা

বুধবার ঝাড়খণ্ডের মিহি জাম থানার পুলিশ জানায় জামতারা ক্ষেতের মধ্যে গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়েছে |

  • Share this:

# কলকাতা : নিউ মার্কেটে সইফ খান নামে  ব্যাবসায়ীর জামতারাতে গলা কেটে খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ২|  গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখার অধিকারিকরা | উদ্ধার খুনে ব্যবহৃত হওয়া গাড়ি | গোয়েন্দা সুত্রে খবর, যে গাড়িতে করে ওই ব্যবসায়ীকে কলকাতা থেকে ঝাড়খণ্ডে জামতারাতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেই গাড়ির হদিশ মেলে ধৃতদের জেরা করে | ধৃতদের  নাম, আফতাব আলম ও নাজারে আলম | বেনিয়াপুকুর ও নারকেলডাঙা থেকে গ্রেফতার অভিযুক্তরা |

ধৃতদের ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হলে ২৪ অগাস্ট পর্যন্ত ট্রানসিট রিমান্ডের নির্দেশ দেয় ব্যাঙ্কশাল আদালত | মিহিজাম থানার আধিকারিকরা এদিন নিউ মার্কেট থানায় আসেন | এদিনই ধৃতদের নিয়ে যাওয়া হয় ঝাড়খণ্ডে |কেন খুন করা হলো? গোয়েন্দা সুত্রে খবর, ব্যবসায়িক কারণে অভিযুক্তরা নিহত সাইফের  পরিচিত| অভিযুক্তরা সইফের থেকে প্রায় পনেরো লক্ষ টাকা ধার নেয় | কিছু টাকা ফেরত দিলেও প্রায় দু -তিন লক্ষ টাকা শোধ দেওয়া বাকি ছিল| সইফ সেকারণে টাকা ফেরতের  জন্য অভিযুক্ত দেরকে চাপ দিছিলো | তখনই ক্রাইম থ্রিলার দেখে ঠান্ডা মাথায় খুনের পরিকল্পনা করে আততায়ীরা|

এরপরই  টাকা ফেরত দেবার অছিলায় মঙ্গলবার ডেকে নেয়  সইফকে | সইফ টাকা নিতে দেখা করে অভিযুক্তদের সঙ্গে| কীভাবে খুন করা হয়েছিল? গোয়েন্দা সুত্রে খবর, মঙ্গলবার সইফ খান বাড়ি থেকে বের হন সন্ধেতে | আফতাব আলম ও নাজারে আলমের  সঙ্গে দেখা করে সইফ| এরপর বিয়ারে মধ্যে ঘুমের ওষুধ  মিশিয়ে সইফকে খাইয়ে দেয় | সইফ অচৈতন্য হতেই গাড়িতে তুলে নিয়ে ঝাড়খণ্ডে  পৌঁছে যায় | সেখানে হাই ওয়ে পাশে জামতারায় একটি ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে গিয়ে ধারালো চাকু  দিয়ে মাথার পিছনে চুলের মুঠি ধরে গলা কেটে নৃশংসভাবে হত্যা করে | এরপর মিহি জাম থানার পুলিশ ওই ক্ষেতের  মধ্যে  থেকে গলা কাটা  দেহ উদ্ধার করে| সইফের পকেটে স্কুটির চাবি ছিল |  সেখানে চাবির রিংয়ের কলকাতার দোকানে ঠিকানা পায় পুলিশ | এরপর ওই দোকানে ফোন করে সাইফের বাড়ির ঠিকানা ও ফোন নম্বর  পায় মিহি জাম থানার পুলিশ |

মঙ্গলবার সাইফ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আর ফেরেননি | বুধবার মিহি জাম থানার পুলিশ বাড়ির লোককে খবর দেয় যে  সাইফকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে | পরিবারের সদ্যস্যরা শনাক্ত করেন দেহ | তদন্তে নাম মিহি জাম থানা |  যোগাযোগ করে নিউ মার্কেট থানাতেও | কলকাতা গুন্ডা দমন শাখার আধিকারিকরা খোঁজ করতে থাকেন কি করে ওই ব্যাবসায়ী  কলকাতা থেকে জামতারা পৌছালো | ওখানে কে বা কারা খুন করল | কারণ মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন রাত ৯টা ১৮ মিনিট পর্যন্ত  খিদিরপুরে পাওয়া গিয়েছে| গুণ্ডা দমন শাখা মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন ও ইলেকট্রনিক্স সার্ভিলেন্স দ্বারা অভিযুক্তদের শুক্রবার রাতে বেনিয়াপুকুর ও নারকেলডাঙ্গা  থেকে গ্রেফতার করে দুই অভিযুক্তকে | নিহতের  দাদা কায়েস খান জানিয়েছেন, " দোষীরা যেন কঠোর শাস্তি পায় | সারা জীবন যেন এরকম কষ্ট ভোগ করে | ভাইকে যেভাবে নৃশংস ভাবে হত্যা করেছে আমরা কঠিন শাস্তি চাই |"প্রসঙ্গত মঙ্গলবার  রাফি আহমেদ  কিদওয়াই রোডের ব্যাবসায়ী সাইফ খান সন্ধেতে বেরোন | কিন্তু রাতে ফেরেননি |

বুধবার ঝাড়খণ্ডের  মিহি জাম থানার পুলিশ জানায় জামতারা ক্ষেতের মধ্যে গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়েছে | এরপরই মিহি জাম থানা পরিবার  ও নিউ মার্কেট থানার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে |  সেই ঘটনায় গ্রেফতার দুই অভিযুক্ত  কলকাতা থেকে |ARPITA HAZRA

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: Murder, Police