নেমে এসেছেন মোরাদাবাদের রাস্তায়! করোনা নিয়ে দিচ্ছেন সচেতনতার বার্তা স্বয়ং যমরাজ!

নেমে এসেছেন মোরাদাবাদের রাস্তায়! করোনা নিয়ে দিচ্ছেন সচেতনতার বার্তা স্বয়ং যমরাজ!

মোরাদাবাদের এলাকায় এলাকায় মানুষজনকে সচেতন করে চলেছেন। মাস্ক পরার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কথা বলছেন তিনি।

  • Share this:

#মোরাদাবাদ: হু-হু করে বাড়ছে করোনা। দৈনিক সংক্রমণের পরিসংখ্যানে প্রতি দিন রেকর্ড গড়ছে দেশ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৫ হাজার। যা রীতিমতো আতঙ্ক তৈরি করেছে। চিন্তায় পড়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। এই পরিস্থিতিতে যমালয় থেকে মোরাদাবাদের রাস্তায় নেমে এলেন স্বয়ং যমরাজ। তাঁর বার্তা, করোনাকে অবেহলা করে যমালয়ের চাপ বাড়িয়ে লাভ নেই। বরং করোনা বিধি মেনে সুস্থ থাকুন। আসলে মোরাদাবাদের এক স্থানীয় শিল্পী ভিকি যমরাজ সেজে এই সচেতনতার বার্তা দেওয়ার কাজ শুরু করেছেন। স্থানীয় একটি অলাভজনক সংস্থার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তিনি। সেই সূত্রে মোরাদাবাদের এলাকায় এলাকায় মানুষজনকে সচেতন করে চলেছেন। মাস্ক পরার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কথা বলছেন তিনি।

দেখে মনে হয় যমালয় থেকে নেমে এসেছেন স্বয়ং যমরাজ। কালো উত্তরীয়, সোনালি পাড়ের ধুতি, মাথায় মুকুট। মহিষের পাশাপাশি যমের কাঁধে রয়েছে গদাও। এগুলির পাশাপাশি মাস্কও রয়েছে যমরাজের সঙ্গে। তবে নজর কেড়েছে তার অভিনব সতর্কবার্তা। এক হাতে একটি হ্যান্ড মাইকের কাটআউট ধরেছেন তিনি। তাতে হিন্দিতে লেখা রয়েছে- মর্ত্যবাসী, আর আমাদের কাজের চাপ বাড়াবেন না। দয়া করে মাস্ক পরা শুরু করুন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। এই কাট আউট নিয়েই এলাকায় এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি। মানুষজনকে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে সচেতন করছেন।

https://twitter.com/ANINewsUP/status/1380375208838635521

ANI-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই শিল্পীর বার্তা, ফের ভয়ংকর রূপ নিয়েছে করোনা। মানুষজনও করোনা বিধি নিয়ে গা-ছাড়া মনোভাব দেখাচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে সবাইকে সচেতন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। সবাই যাতে মাস্ক পরেন ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলেন, বার বার সেই কথাই বলা হচ্ছে। রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে প্রতিটি মানুষকে করোনা বিধি মেনে চলার আবেদন জানানো হচ্ছে। কারণ অসচেতন হলেই বড় বিপদ ঘটার সম্ভাবনা প্রবল।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৪৫ হাজার ৩৮৪ জন। যা এ পর্যন্ত রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণ। এর জেরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৩২ লক্ষ ৫ হাজার ৯২৬। মৃত্যু হয়েছে ৭৯৪ জনের। দিন দিন এভাবে সংক্রমণ বৃদ্ধি ফের আতঙ্ক তৈরি করেছে। এর জেরে ইতিমধ্যেই উত্তরপ্রদেশের একাধিক জেলায় কড়া বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। নয়ডা, এলাহাবাদ, মীরাট ও গাজিয়াবাদে নাইট কারফিউ চলছে। তবে প্রয়োজনীয় সমস্ত পরিষেবা জারি রয়েছে। লখনউতে করোনাবিধি মেনে সকাল ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কাজকর্ম চলছে। তবে শুধুমাত্র লখনউ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন এলাকার মধ্যেই এই কারফিউ জারি রয়েছে। গ্রামের দিকে ততটা বিধিনিষেধ নেই।

Published by:Raima Chakraborty
First published: