করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

Coronavirus: ভ্যাকসিন তৈরিতে কম করে ৮-১০ বছর লাগে: WHO

Coronavirus: ভ্যাকসিন তৈরিতে কম করে ৮-১০ বছর লাগে: WHO
গোটা বিশ্বের তাবড় বিজ্ঞানীরা করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে দিনরাত প্ররিশ্রম করছেন৷ এই বিশ্ব মহামারী থেকে বাঁচতে মানুষ অধীর ভাবে অপেক্ষা করছে একটি ভ্যাকসিনের৷ সবার মনে একটাই প্রশ্ন, কবে আসবে করোনার ভ্যাকসিন? এ হেন পরিস্থিতিতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) ভ্যাকসিন নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিল৷
  • Share this:
গোটা বিশ্বের তাবড় বিজ্ঞানীরা করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে দিনরাত প্ররিশ্রম করছেন৷ এই বিশ্ব মহামারী থেকে বাঁচতে মানুষ অধীর ভাবে অপেক্ষা করছে একটি ভ্যাকসিনের৷ সবার মনে একটাই প্রশ্ন, কবে আসবে করোনার ভ্যাকসিন? এ হেন পরিস্থিতিতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) ভ্যাকসিন নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিল৷ গোটা বিশ্বের তাবড় বিজ্ঞানীরা করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে দিনরাত প্ররিশ্রম করছেন৷ এই বিশ্ব মহামারী থেকে বাঁচতে মানুষ অধীর ভাবে অপেক্ষা করছে একটি ভ্যাকসিনের৷ সবার মনে একটাই প্রশ্ন, কবে আসবে করোনার ভ্যাকসিন? এ হেন পরিস্থিতিতে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) ভ্যাকসিন নিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিল৷ এ ক্ষেত্রে ইবোলার প্রসঙ্গ টানল বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা৷ WHO জানাচ্ছে, গোটা বিশ্বে ইবোলার ভ্যাকসিন তৈরিতে সবচেয়ে কম সময় ৫ বছর লেগেছিল৷ এ ক্ষেত্রে ইবোলার প্রসঙ্গ টানল বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা৷ WHO জানাচ্ছে, গোটা বিশ্বে ইবোলার ভ্যাকসিন তৈরিতে সবচেয়ে কম সময় ৫ বছর লেগেছিল৷ WHO জানাচ্ছে, একটি নিরাপদ ভ্যাকসিন তৈরি করতে কম করে ৮ থেকে ১০ বছর লাগে৷ কিন্তু তারা এই সময়সীমাকে কমিয়ে ফেলে ১২ থেকে ১৮ মাস করার চেষ্টা করছে৷ WHO জানাচ্ছে, একটি নিরাপদ ভ্যাকসিন তৈরি করতে কম করে ৮ থেকে ১০ বছর লাগে৷ কিন্তু তারা এই সময়সীমাকে কমিয়ে ফেলে ১২ থেকে ১৮ মাস করার চেষ্টা করছে৷
WHO-র তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'একটি সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, বিশ্বের একটি ক্ষুদ্র অংশের মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু ভাইরাস সংক্রমণের এই চেনকে ভাঙতে গেলে একটাই উপায়, ভ্যাকসিন৷' WHO-র তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, 'একটি সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, বিশ্বের একটি ক্ষুদ্র অংশের মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু ভাইরাস সংক্রমণের এই চেনকে ভাঙতে গেলে একটাই উপায়, ভ্যাকসিন৷' বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাচ্ছে, COVID19-এর ঝুঁকি সকলের৷ তাই সকলকে সতর্ক থাকতে হবে৷ যার করোনা ধরা পড়েনি, তাকেও সমান সতর্ক হতে হবে৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানাচ্ছে, COVID19-এর ঝুঁকি সকলের৷ তাই সকলকে সতর্ক থাকতে হবে৷ যার করোনা ধরা পড়েনি, তাকেও সমান সতর্ক হতে হবে৷
Published by: Arindam Gupta
First published: June 27, 2020, 12:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर