নাম এক হওয়ায় বিরাট ভুল ! করোনা আক্রান্ত নন মহিলার রিপোর্ট এল COVID-19 পজিটিভ !

Representational Image

ভুল ধরা পড়ার পর অবশ্য মহিলাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় ৷

  • Share this:

    #শামলি: দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর ৷ এই অবস্থায় যদি পরীক্ষাগারের পক্ষ থেকে রোগীর ভুল রিপোর্টও দেওয়া হয়, তাহলে ঈশ্বরই রক্ষাকর্তা ! উত্তর প্রদেশের শামলিতে এমনই ঘটনা ঘটল শনিবার ৷ একই নাম হওয়ায় ল্যাবের পক্ষ থেকে ভুল রিপোর্ট দেওয়া হয় ৷ আর তাতেই সমস্যা বাড়ে ৷

    কোভিড-১৯ আক্রান্ত নন, এমন এক মহিলার রিপোর্টে এসেছিল তিনি করোনা পজিটিভ ৷ ভুল ধরা পড়ার পর অবশ্য মহিলাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় ৷ একই নামের অন্য জেলার এক রোগীর সঙ্গে ওই মহিলার রিপোর্ট ভুলবশত এক করে ফেলে পরীক্ষাগার ৷ আর তাতেই বিভ্রান্তি বাড়ে ৷ মেরঠ মেডিক্যাল কলেজের পক্ষ থেকেই রিপোর্ট ভুল পাঠানো হয় ৷

    এদিকে চিকিৎসা করাতে এসে লকডাউনের কলকাতায় আটকে ত্রিপুরার ১৩টি পরিবার। মার্চ থেকে বাইপাস সংলগ্ন গেস্টহাউসে কাটছে দিনরাত। একমাস শহরে আটকে পকেট খালি। ত্রিপুরা সরকারের আর্থিক প্যাকেজের সুবিধাও মিলছে না বলে অভিযোগ। এখন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে সাহায্যের আর্জি জানাচ্ছেন তাঁরা।

    চিকিৎসা করাতে মার্চ মাসে ত্রিপুরা থেকে কলকাতায় আসে ১৩টি পরিবার । কারও বাইপাস সার্জারি হবে। কারও লিভারের জটিল সমস্যা। বাইপাসের বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাও হয়।

    চিকিৎসা শুরু হওয়ার কিছুদিন পরই করোনা সতর্কতায় শুরু হয় লকডাউন। তখন থেকেই বাইপাস সংলগ্ন মুকুন্দপুরের গেস্ট হাউসে ঘরবন্দি ১৩টি পরিবার। কেটে গেছে একমাস। যা টাকা সঙ্গে ছিল, সব শেষ। চরম আর্থিক সংকটে ত্রিপুরার ৩৭ জন বাসিন্দা। তাঁদের অভিযোগ, আবেদন করা সত্ত্বেও, ভিনরাজ্যে আটকে পড়াদের জন্য ত্রিপুরা সরকারের আর্থিক প্যাকেজের সুবিধা মেলেনি। কল্যাণপুর, কাঞ্চনমালা, রামনগরের মানুষগুলির খোঁজ করেনি ত্রিপুরা সরকার।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: