corona virus btn
corona virus btn
Loading

Exclusive: দু’‌ঘণ্টায় সামান্য খরচে করোনা রিপোর্ট!‌ নতুন কিট তৈরিতে চরম সাফল্য বাঙালি বিজ্ঞানীদের

Exclusive: দু’‌ঘণ্টায় সামান্য খরচে করোনা রিপোর্ট!‌ নতুন কিট তৈরিতে চরম সাফল্য বাঙালি বিজ্ঞানীদের
দেখে নিন, এই সেই কিট!‌

ইতিমধ্যেই আইসিএমআর বা ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ এই কিটের অনুমোদন বা ছাড়পত্র দিয়েছে।

  • Share this:

#‌কলকাতা:‌ বাঙালি বিজ্ঞানীদের হাতেই তৈরি হল করোনা টেস্ট কিট। এ রাজ্যেরই একটি বায়োটেক সংস্থার উদ্যোগে তৈরি হল করোনা ভাইরাস মোকাবিলার ‌এক অত্যাবশ্যকীয় অস্ত্র। এই কিট সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয়েছে বলেই দাবি এই বায়োটেক সংস্থার বিজ্ঞানীদের। ইতিমধ্যেই আইসিএমআর বা ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ এই কিটের অনুমোদন বা ছাড়পত্র দিয়েছে। ছাড়পত্র পাওয়ার পর এই বায়োটেক সংস্থার উদ্যোগে কিট তৈরিতে আরও গতি আনা হয়েছে।

সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর রাজা মজুমদার বলেন, ‌‘‌আমরা এক মাসে এক কোটি মানুষের টেস্ট করতে পারব অন্তত এমনটাই আমাদের প্রস্তুতি নেওয়া আছে। এই মুহূর্তে প্রত্যেকদিন আমরা তিন লক্ষ মানুষের টেস্ট করার কিট উৎপাদন করে যাচ্ছি। আইসিএমআরের থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার পর আমাদের থেকে অন্যান্য রাজ্যের সরকারের তরফেও আবেদন এসেছে এই কিট দেওয়ার জন্য।’‌

করোনাভাইরাস ভোলবদল বা মিউটেশন করেই চলেছে। অন্তত এমনটাই দাবি করছেন চিকিৎসক থেকে শুরু করে বিজ্ঞানীরা। তাই বেশি সংখ্যক টেস্ট করার পক্ষে সওয়াল করে যাচ্ছেন চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীরা। কিন্তু এই নভেল করোনাভাইরাস যাতে নিজেকে বদলে ফেলেও ফাঁকি না দিতে পারে তেমনই এই কিট, যা তৈরি করে ফেলেছেন বাঙালি বিজ্ঞানীরা। সংস্থার বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, ‘‌যে কিটটি আইসিএমআর ছাড়পত্র দিয়েছে সেটির ছাঁকনির সংখ্যা দুই। এক্ষেত্রে এই দুই ছাঁকনির কিটটি দ্রুত এবং এক ধাপেই এই পরীক্ষা সেরে ফেলতে পারে। মূলত ভাইরাসের মিউটেশনের থেকে দ্রুত রোগ নির্ণয় করাটাই এখন মূল কথা। তাই এই কিটটি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় অনেক বেশি উপযোগী।’‌ এই কিটটি তৈরিতে এই বায়োটেক সংস্থার বিজ্ঞানীদের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন কেন্দ্রীয় সরকারের কাউন্সিল ফর সাইন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের অবসরপ্রাপ্ত বিশিষ্ট বিজ্ঞানী সমিত আঢ্য ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রধান কৌস্তুভ পন্ডা।

এই বায়োটেক সংস্থাটি জানাচ্ছে, আইসিএমআর স্বীকৃত এই কিটের দাম ৫০০ টাকা। এত সস্তায় দেশে আর কোথাও কিট মিলবে না বলেই দাবি এই সংস্থার বিজ্ঞানীদের। এতে পরীক্ষার খরচ অনেক কম হবে বলেই মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। আইসিএমআর এর পক্ষ থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার পর বিভিন্ন রাজ্য এই সংস্থার কিটটি কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করছে বলেই জানাচ্ছেন সংস্থার বিজ্ঞানীরা। সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর এই কিটটির জন্য কৃতিত্ব দিয়েছেন জয়দীপ মিত্র, গৈরিক মুখোপাধ্যায়, পিনাকী চট্টোপাধ্যায়, অভিজিৎ ঘোষ, সুরজিৎ মাইতি, মোহাম্মদ নাজিম খান, সংহিতা মিত্রের মতো তরুণ বিজ্ঞানীদের। গত দু’‌মাস ধরে লাগাতার পরিশ্রম করে তাঁরা এই কিটটি তৈরি করে পূর্ব ভারতে নজির গ‌ড়েছেন বলেই দাবি তাঁদের।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়
First published: May 7, 2020, 5:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर