COVID19| রমজান মাসে সতর্কতা! সব দেশের সরকারকে গাইডলাইন দিল WHO

রমজানে একাধিক পরামর্শ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

বিশ্বের প্রতিটি দেশকে WHO-এর আবেদন, রমজান মাসে কী করা যাবে, আর কী করা যাবে না—তা পরিষ্কার ভাবে সবাইকে জানানো হোক। এ ব্যাপারে জাতীয় নীতি নিতে হবে৷

  • Share this:

    #জেনেভা: মুসলমান সম্প্রদায়ের পবিত্র মাস রমজান শুরু হচ্ছে ২৩ এপ্রিল৷ চলবে ২৩ মে পর্যন্ত৷ কিন্তু করোনা ভাইরাসের মাহামারীর আবহে এ বছর রমজান মাসে জমায়েত হয়ে নমাজ না পড়ার আবেদন জানাল বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)৷ হু-এর আবেদন, রমজান মাসেও কোনও রকম ধর্মীয় জমায়েত করা চলবে না৷ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেই হবে করোনা থেকে বাঁচতে৷

    WHO জানিয়েছে, অন্তত পক্ষে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রাখতেই হবে হবে করোনার সংক্রমণ রুখতে৷ হু গাইডলাইনে বলেছে, এই পবিত্র অনেক মুসলমান মসজিদে যাওয়া বাড়িয়ে দেন রমজান মাসে। একসঙ্গে অনেক মানুষ প্রার্থনা করেন। বিশেষ করে শেষ দশ দিনে উপস্থিতির সংখ্যা বহু মসজিদে বেড়ে যায় উল্লেখযোগ্য হারে। কিন্তু এ বছর তা করলে হবে না৷ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে দূরত্ব বজায় রাখতেই হবে৷

    বিশ্বের প্রতিটি দেশকে WHO-এর আবেদন, রমজান মাসে কী করা যাবে, আর কী করা যাবে না—তা পরিষ্কার ভাবে সবাইকে জানানো হোক। এ ব্যাপারে জাতীয় নীতি নিতে হবে৷

    বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ মেনে মুসলমান সম্প্রদায়ের বহু ধর্মীয় নেতা রমজান মাসে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন৷ কিন্তু তারই মধ্যে চিন্তার হল, কয়েকটি মুসলিম প্রধান দেশে কিছু কট্টরপন্থী নেতা মানুষকে ভুল বোঝানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন৷ তা হল, করোনাকেট ঠেকাতে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা দরকার৷ তাই এই সময়েই নাকি বেশি করে জড়ো হয়ে নমাজ পড়া উচিত৷ এই ধরনের ধর্মীয় নেতাদের জন্য বিপদ বাড়ছে পাকিস্তানেও৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: