corona virus btn
corona virus btn
Loading

'করোনা আক্রান্ত মুসলমানদের চিকিৎসা বন্ধ করুন', চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের কথোপকথনের স্ক্রিনশট ভাইরাল

'করোনা আক্রান্ত মুসলমানদের চিকিৎসা বন্ধ করুন', চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের কথোপকথনের স্ক্রিনশট ভাইরাল
Representative image

রাজস্থানের চুরুর ওই বেসরকারি নার্সিংহোমের চিকিৎসক-সহ দুই স্বাস্থ্যকর্মীর কথোপকথনের স্ক্রিনশট ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয় প্রশাসন ।

  • Share this:

#জয়পুর: চিকিৎসার আগে ধর্ম ! হিন্দু , মুসলমান , খ্রিস্টান , জৈন , বৌদ্ধের ভেদাভেদ । এহেন মারাত্বক অভিযোগ উঠেছে রাজস্থানের চুরুর একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক এবং কর্মীদের বিরুদ্ধে । সেখানে হাসপাতালের কর্মীরা মানবতা বিসর্জন দিয়ে করোনা আক্রান্ত মুসলিম রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দিতে একেবারেই রাজি নয় । আর তা নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপে বিস্তর মেসেজ চালাচালি করেন তাঁরা ।

চুরুর ওই বেসরকারি নার্সিংহোমের চিকিৎসক-সহ দুই স্বাস্থ্যকর্মীর কথোপকথনের স্ক্রিনশট ভাইরাল হতেই তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয় প্রশাসন । অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু হয়েছে । বিষয়টি সামনে আসতেই ক্ষমা চেয়ে নিয়েছে ওই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ । হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে , কথোপকথনটি ৮ এপ্রিলের । তখন তবলিঘি জামাতের ঘটনা ঘটেছিল । কিন্তু হাসপাতালে মুসলিম রোগীদের চিকিৎসা করা হয় বলেই জানান হয় । এদিকে ঘটনার কথা জানাজানি হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসপাতালের মালিক এ বিষয়ে ক্ষমা চেয়ে নেন । তিনি লেখেন, "কর্মীদের হয়ে আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি । তবে কোনও ধর্মীয় সম্প্রদায়কে আঘাত করা তাঁদের উদ্দেশ্য নয় ।"

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে , চুরু জেলার শ্রীচাঁদ বরদিয়া রোগ নিদান কেন্দ্র হাসপাতালের এক ডাক্তার ও দুই স্বাস্থ্যকর্মীর মধ্যে কথোপকথন ভাইরাল হয় । হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে একজন লেখেন, “মুসলিম রোগীদের পরিষেবা দেওয়া বন্ধ  করুন ।” আরেকটি মেসেজে এক ডাক্তার লেখেন, “কাল থেকে কোনও মুসলিম রোগীকে আমি দেখব না । তাঁদের বলে দিও ম্যাডাম এখানে নেই ।” এদিকে , স্ক্রিনশট সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বিতর্ক শুরু হয় । অভিযুক্ত তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে পুলিশ ।
এই ঘটনায় রবিবার সরদরশহর পুলিশ স্টেশনে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারার পাশাপাশি দুর্যোগ মোকাবিলা আইন ভাঙার দায়েও অভিযোগ দায়ের হয়েছে । এ প্রসঙ্গে স্টেশন হাউস অফিসার মহেন্দ্র দত্ত শর্মা জানান, “হাসপাতালের এক ডাক্তার, এক টেকনিশিয়ান ও এক কম্পাউন্ডারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। "

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 8, 2020, 2:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर