Coronavirus in Bengal: এক লাফে ১৬ হাজারের কাছে দৈনিক সংক্রমণ! কলকাতা, উত্তর চব্বিশ পরগণায় ভয়াবহ পরিস্থিতি

প্রতীকী ছবি৷

শনিবার রাজ্যে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৪ হাজারের কিছু বেশি৷ এ দিন তা এক ধাক্কায় পৌঁছে গিয়েছে ১৬ হাজারের কাছাকাছি৷

  • Share this:

    #কলকাতা: রাজ্যের দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক লাফে পৌঁছে গেল ১৬ হাজারের দোরগোড়ায়! রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এ দিনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত চব্বিশ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন সংক্রামিতের সংখ্যা ১৫,৮৮৯ জন৷ একদিনে মৃত্যু হয়েছে আরও ৫৭ জনের৷ প্রতিদিনই নতুন আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে বাড়ায় এই মুহূর্তে রাজ্যে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৮ হাজার ৮০০ জন! শুধুমাত্র কলকাতায় গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৩৮০০ মানুষ৷ উত্তর চব্বিশ পরগণাতেও একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ছাড়িয়েছে৷

    শনিবার রাজ্যে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৪ হাজারের কিছু বেশি৷ এ দিন তা এক ধাক্কায় পৌঁছে গিয়েছে ১৬ হাজারের কাছাকাছি৷ গত কয়েকদিনে যেভাবে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, তাতে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ এবং চিকিৎসকরা৷ এ মাসের শুরুর দিকেও রাজ্যে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থতার হার ছিল ৯৫ শতাংশের বেশি৷ এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ৮৬.৫৯ শতাংশ৷

    নতুন আক্রান্তের নিরিখে কলকাতার সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে উত্তর চব্বিশ পরগণা৷ গত চব্বিশ ঘণ্টায় কলকাতা এবং উত্তর চব্বিশ পরগণায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ৩৭৭৯ এবং ৩১৪০৷ একদিনে কলকাতায় মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের৷ আর উত্তর চব্বিশ পরগণায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন আরও ১৫ জন৷ উদ্বেগ বাড়িয়ে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণাতেও নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজারের কাছে পৌঁছে গিয়েছে৷ গত চব্বিশ ঘণ্টায় হাওড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮৯ জন, হুগলিতে ৭৫১ জন৷ পশ্চিম বর্ধমানেও নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৭০০ ছাড়িয়েছে৷ মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বীরভূমেও গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন সংক্রামিতের সংখ্যা ৬০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে৷

    এই পরিস্থিতিতে কলকাতা বা উত্তর চব্বিশ পরগণার মতো জেলাগুলিতে করোনা আক্রান্তরা হাসপাতালে বেড পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠছে৷ স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যানে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, রাজ্যে করোনা রোগীদের জন্য বরাদ্দ মোট শয্যার ৫০ শতাংশের বেশি খালি রয়েছে৷ এ দিনই কলকাতা, উত্তর চব্বিশ পরগণা, হাওড়া সহ রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় বেসরাকারি হাসপাতালগুলির প্রায় ১৪০০ বেড করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য হাতে নিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর৷ কিন্তু যে হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তাতে কপালে ভাঁজ পড়ে গিয়েছে চিকিৎসকদের৷ প্রশাসনের তরফে সবরকম চেষ্টা করা হলেও সাধারণ মানুষের একাংশের মধ্যে এখনও উদাসীনতা দেখা যাচ্ছে৷ অনেকেই রাস্তায় বেরিয়ে মাস্ক পরছেন না, মানছেন না সামাজিক দূরত্ব বিধিও৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: