corona virus btn
corona virus btn
Loading

মাস্ক পরেই করোনাকে বাগে আনল জাপান, ভারতে এখনও অনীহা

মাস্ক পরেই করোনাকে বাগে আনল জাপান, ভারতে এখনও অনীহা
মাস্ক পরেই করোনাকে বাগে আনল জাপানবাসী৷

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জাপানের মানুষ মাস্ক পরাটাকে দৈনন্দিন জীবনে অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন৷

  • Share this:

#জাপান: করোনা সংক্রমণ রুখতে বার বারই মাস্ক পরার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসক এবং বিশেষজ্ঞরা৷ কিন্তু অনেকেই তা কানে তুলছেন না৷ কিন্তু মাস্ক পরা যে কতখানি কার্যকর হতে পারে তার আদর্শ উদাহরণ জাপান৷ বিশেষজ্ঞরাই স্বীকার করছেন, জাপানে করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসার অন্যতম কারণ মাস্ক পরা নিয়ে সেদেশের মানুষের সচেতনতা৷ মাস্ক পরাকে জাপানবাসী কার্যত অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন৷

এই মুহূর্তে জাপানে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৬৮০৪৷ তার মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪৪০৬ জন৷ মৃতের সংখ্যা ৮৮৬৷ অর্থাৎ জাপানে এই মুহূর্তে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২৫০০-রও কম৷ সবথেকে স্বস্তির বিষয়, প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে জরুরি পরিস্থিতি প্রত্যাহার করে নিলেও সামাজিক দূরত্ব মানছেন মানুষ৷ নিয়ম করে পরছেন মাস্ক৷ লকডাউন বাধ্যতামূলক না হলেও নিজে থেকেই সমস্ত বিধিনিষেধ মেনেছে জাপানবাসী৷

করোনা মোকাবিলায় জাপানে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে একটি দল তৈরি করা হয়েছিল৷ সেই দলের সহকারী প্রধান এবং মহামারি রোগ বিশেষজ্ঞ শিগেরু ওমি-র দাবি, স্বাস্থ্য নিয়ে জাপানের মানুষ অত্যন্ত সচেতন৷ সেটাই দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে পারার বড় কারণ৷ মাস্ক পরা, হাতধোয়া থেকে শুরু করে যাবতীয় সতর্কতা বিধি মেনে চলা, সব নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলেছেন জাপানবাসী৷

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জাপানের মানুষ মাস্ক পরাটাকে দৈনন্দিন জীবনে অভ্যাসে পরিণত করে ফেলেছেন৷ যা করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে পারার বড় কারণ৷ এমনিতেই ফুলের রেণু থেকে জাপানিদের অ্যালার্জি হয়৷ তাই বছরের শুরু বসন্ত কাল পর্যন্ত অনেকেই মাস্ক ব্যবহার করেন৷ আবার ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো অসুখ থেকে বাঁচতেও অনেকে নিয়মিত মাস্ক পরেন জাপানে৷

অন্যান্য দেশের মতো জাপানেও প্রাথমিক ভাবে করোনা যে ভয়াবহ রূপ নিতে শুরু করেছিল, তাতে জাপানের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার আশঙ্কা ছিল৷ এই পরিস্থিতিতে জাপানবাসীর সচেতনতা এবং স্বার্থত্যাগ দেশকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করে৷ জাপানে আইন প্রণয়ন করে লকডাউন ঘোষণা করা হয়নি৷ কিন্তু সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার আবেদন জানিয়েছিল জাপান সরকার৷ সামাজিক, আর্থিক ক্ষতি স্বীকার করেও তাতে সাড়া দিয়েছে সেদেশের মানুষ৷ সংক্রমণ বাগে না আসা পর্যন্ত তাঁরা হাল ছাড়েননি৷ তবে এটাও ঠিক, অন্যান্য দেশের তুলনায় জাপানের নমুনা পরীক্ষাও অনেক কম হয়েছে৷ রিপোর্ট কতটা নির্ভুল আসছে, তা নিয়েও বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ সংশয় প্রকাশ করেছেন৷

এত কিছু সত্ত্বেও জাপানের মানুষ করোনা নিয়ন্ত্রণে যেভাবে শৃঙ্খলাবদ্ধ থেকেছেন, তার প্রশংসা না করে উপায় নেই৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যখন মাস্কের ব্যবহার নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে, তখনও মাস্কের উপরই ভরসা রেখেছ জাপান৷ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়লে কীভাবে সামাল দেওয়া হবে, তা নিয়েও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে জাপানের বিশেষজ্ঞ কমিটি৷

 
Published by: Debamoy Ghosh
First published: June 1, 2020, 5:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर