corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাসপাতাল থেকে কোনও অবস্থাতেই ফেরানো যাবে না রোগীকে, নির্দেশিকা জারি রাজ্যে

হাসপাতাল থেকে কোনও অবস্থাতেই ফেরানো যাবে না রোগীকে, নির্দেশিকা জারি রাজ্যে
গতকালই মুখ্যমন্ত্রী সক্রিয়তা বাড়াতে অনুরোধ করেন বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে।

স্বাস্থ্য দফতর নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দিল, হাসপাতাল কোনও শর্তেই রোগীকে ফেরাতে পারবে না।

  • Share this:

#কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী বুধবারই বৈঠক করে অনুরোধ বেসরকারি হাসপাতালগুলির কর্তৃপক্ষকে আরও বেশি করে সক্রিয় হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। ২৪ ঘন্টার মধ্যেই স্বাস্থ্য দফতর নির্দেশিকা জারি করে  জানিয়ে দিল, হাসপাতাল কোনও শর্তেই রোগীকে ফেরাতে পারবে না।

বৃহস্পতিবারের এই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, কেন্দ্রের তরফে ২৮ এপ্রিল একটি বিবৃতিতে রাজ্যগুলিকে জানানো হয়েছে, স্বাস্থ্যপরিষেবায় তৎপরতা বাড়াতে, যাতে রোগীরা দ্রুত চিকিৎসা পান। পশ্চিমবঙ্গ সরকার সেই যুক্তিতেই হাসপাতালগুলিকে জানাচ্ছে, কোনও অবস্থাতেই রোগীকে ফেরানো চলবে না। সরকারি-বেসরকারি সমস্ত হাসপাতাসলের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য এই নির্দেশ। ওই নির্দেশিকায় আরও বলা হচ্ছে,রোগীকে কোনও চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার বা ভর্তি নেওয়ার ক্ষেত্রে সরকারি অনুমোদন দরকার নেই। আইসিএমআরের গাইডলাইন অনুযায়ী, করোননা পরীক্ষার জন্যও লাগবে না কোনও ছাড়পত্র।

বুধবারের সাংবাদিক বৈঠকেই রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার চিত্রটাও বুধবার পরিষ্কার করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যসচিব জানান, করোনা চিকিৎসার জন্যে সরকারি হাসপাতালগুলিতে মোট বেড রয়েছে ৭৯০টি। মুখ্যমন্ত্রী জানান, এই মুহূর্তে ৫১ টা বেসরকারি হাসপাতাল অধিগ্রহণ করেছে সরকার। সেখানে বিনামূল্যেই চিকিৎসা পাচ্ছেন রোগীরা। এর পরেই বাকি নার্সিংহোমগুলিকেও কাজ চালু রাখার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, "বাচ্চাদের টিকাকরণ বন্ধ রাখা যাবে না। ডায়ালিসিস চাই। গর্ভবতী মহিলাদের ঘোরানো যাবে না।" হাসপাতালে করোনা ছাড়াও অন্য বহু রকম সমস্যা নিয়ে আসা রোগীদের ভোগান্তি কমানোই এখন লক্ষ্য রাজ্য প্রশাসনের।

করোনা-লকডাউনের জেরে বহু জায়গা থেকেই অভিযোগ উঠছে এলাকার ডাক্তাররা রোগী দেখছেন না। মুখ্যমন্ত্রী বুধবার বলেন, সামাজিক দূরত্বের শর্ত মেনে, ভিড় না করে বিভিন্ন ক্লিনিকে রোগী দেখা শুরু করতে পারেন চিকিৎসকরাও।

First published: April 30, 2020, 4:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर