corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভারতের বিশ্বকাপ জেতা স্টেডিয়াম এবার কোয়ারেন্টাইন সেন্টার, করোনা যুদ্ধে নামল ওয়াংখেড়ে

ভারতের বিশ্বকাপ জেতা স্টেডিয়াম এবার কোয়ারেন্টাইন সেন্টার, করোনা যুদ্ধে নামল ওয়াংখেড়ে

একটা বিশ্বজয়ের সাক্ষী ছিল এই স্টেডিয়াম এবার সামনের সারিতে এসে মারণ করোনার বিরুদ্ধেও যুদ্ধে জয়ই লক্ষ্য

  • Share this:

#মুম্বই : ২০১১  বিশ্বকাপ ফাইনাল অনুষ্ঠিত হওয়া ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হতে চলেছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার। যে মাঠে  ২৮ বছর পর ভারত বিশ্বকাপ জিতেছিল সেই ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি করতে চাইছে  সরকার। মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করতে চেয়ে মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকে চিঠি পাঠালো বৃহানমুম্বই মিউনিসিপাল করপরেশন অর্থাৎ বিএমসি।

 করোনা সংক্রমণ দিনে দিনে বেড়েই চলেছে ভারতে। শীর্ষস্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। প্রায় ২৮ হাজার  করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। হাজার ছাড়িয়েছে মৃত্যু। কোয়ারান্টিনে থাকা মানুষের সংখ্যা আরও বেশি। ফলে দেখা দিয়েছে জায়গার অভাব। সেই কারণেই এবার ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার পথে মহারাষ্ট্র সরকার। বিএমসির তরফে এমসিএকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। এর আগে মুম্বইয়ের NSCI স্টেডিয়াম অর্থাৎ সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএমসি।

   চিঠি পাওয়ার কথা স্বীকার করে মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। তবে কবে থেকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হবে তা চিঠিতে বলা হয়নি। মুম্বই থেকে ফোনে এমসিএ সচিব সঞ্জয় নায়েক নিউজ18 বাংলাকে জানান," বিএমসির তরফে আমরা চিঠি পেয়েছি। আমরা সব রকম সাহায্যের জন্য প্রস্তুত। তবে চিঠিতে বলা হয়েছে প্রয়োজনে ওয়াংখেড়েকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করা হবে। দিন দুয়েকের মধ্যে চিত্রটা আরও পরিস্কার হবে। মাঠের ভেতরে না মাঠের বাইরে কোনও অংশে এটা হবে সেই বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি। ওয়াংখেড়েের ভেতরে Garware ক্লাবকেও আলাদা করে চিঠি দেওয়া হয়েছে।"

 তবে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের মাঠের ভিতরে কোনও কিছু করা হবে না। স্টেডিয়ামে গ্যালারির নিচে, গেস্ট হাউস সব ফাঁকা জায়গায় এবং Garware প্যাভিলিয়নে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি করা হবে।

ওয়াংখেড়ের ভেতরেই বিসিসিআইয়ের সদর দপ্তর রয়েছে। তবে সেখানে কোনও কিছু হবে না। অফিসকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার ব্যাপারে আপাতত ভাবছেনা স্থানীয় প্রশাসন। কিন্তু ওয়াংখেড়েতে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরি হলে বিসিসিআই'র অফিস খোলার ক্ষেত্রে সময়সীমা আরও বাড়তে পারে। লকডাউন ঘোষণার পর থেকেই বন্ধ রয়েছে বোর্ডের সদর দপ্তর। প্রেসিডেন্ট সৌরভ সহ সব কর্তারাই বাড়ি থেকে কাজ করছেন। এর আগে ইডেনকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার করার জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে প্রস্তাব দিয়ে রেখেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। দেশের অন্যান্য ক্রিকেট স্টেডিয়ামকেও ব্যবহার করার ব্যাপারে গ্রিন সিগন্যাল রয়েছে বোর্ডের। আসলে কঠিন পরিস্থিতিতে প্রশাসনের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়তে চাইছেন ক্রিকেট কর্তারা।

ERON ROY BURMAN

Published by: Debalina Datta
First published: May 15, 2020, 11:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर