corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিয়ের আশায় ৮৫০ কিলোমিটার সাইকেলে পাড়ি, আটক করে কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল পুলিশ

বিয়ের আশায় ৮৫০ কিলোমিটার সাইকেলে পাড়ি, আটক করে কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল পুলিশ
প্রতীকী ছবি

১৫ এপ্রিল ঠিক হয়েছিল বিয়ের দিন। কিন্তু লক ডাউনের আবহে সব আশাই মরতে বসেছিল। কিন্তু, তা হতে দিতে চাননি যুবক। স্বপ্নকে সত্যি করতে প্রায় ৮৫০ কিলোমিটার রাস্তা সাইকেলে পাড়ি দেবেন স্থির করে বেরিয়ে পড়েন।

  • Share this:

#লুধিয়ানাঃ কথায় আছে মানুষ প্রেমে পড়লে অন্ধ হয়ে যায়। আর সেই প্রেম যদি পরিণতির অপেক্ষায় দিন গুনতে শুরু করে, তাহলে তো আর হয়েই গেল। ১৫ এপ্রিল ঠিক হয়েছিল বিয়ের দিন। কিন্তু লক ডাউনের আবহে সব আশাই মরতে বসেছিল। কিন্তু, তা হতে দিতে চাননি লুধিয়ানার যুবক। স্বপ্নকে সত্যি করতে প্রায় ৮৫০ কিলোমিটার রাস্তা সাইকেলে পাড়ি দেওয়ার জন্য কর্মস্থল থেকে বেরিয়ে পড়েন। যদিও স্বপ্নপূরণ হয়নি। যদিও বাড়ি পৌঁছানোর মাত্র ১৫০ কিলোমিটার আগে পুলিশ তাঁকে আটক করে।  তারপর কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠান হয়েছে।

লুধিয়ানার একটি টাইলসের কারখানায় কাজ করেন সোনু কুমার চৌহান। পরিবারের লোকজনই তাঁর বিয়ের বন্দোবস্ত করেন। স্থির হয় ১৫ এপ্রিল উত্তরপ্রদেশের এক তরুণীর সঙ্গে বিয়ে হবে সোনুর। তাই সেই অনুযায়ী প্রস্তুতি চলছিল। তবে আচমকাই লক ডাউন শুরু হয়ে যায় দেশ জুড়ে। কীভাবে যে পরিণতি পাবে পরিণয়, সেই ভাবনায় প্রায় মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। পরিস্থিতির কথা ভেবে অনেকেই বিয়ে পিছিয়ে দেওয়ার কথা বলেন। কিন্তু বছর চব্বিশের সোনু নাছোড়বান্দা। তিনি স্থির করলেন ৮৫০ কিলোমিটার রাস্তা সাইকেলে চড়ে গিয়ে বিয়ে করবেন। যেমন ভাবনা, তেমনই কাজ। পাঞ্জাবের লুধিয়ানা থেকে সাইকেলে চড়ে বেরিয়ে পড়েন সোনু। সঙ্গী তিন বন্ধু। বহু কষ্টে অনাহারে, অর্ধাহারে প্রায় সপ্তাহখানেক দিনরাত এক করে ধরে সাইকেল চালিয়ে ৭০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে ফেলেন।
কিন্তু রবিবার বাধে গোল। মহারাজগঞ্জের পিপরা রসুলপুরের কাছে পুলিশের সোনু-সহ চারজনকে দেখে সন্দেহ করে। তাঁদের পথ আটকান রাস্তায় কর্তব্যরত পুলিশকর্মীরা। কী কারণে লকডাউনেও সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁরা, সেই প্রশ্ন করেন। সোনু উত্তরে জানান, বিয়ের জন্য প্রায় ৮৫০ কিলোমিটার রাস্তা সাইকেলে চড়ে যাওয়ার পরিকল্পনায় বাড়ি থেকে বেরিয়েছেন তাঁরা। কিন্তু পুলিশ গন্তব্যস্থলে পৌঁছতে দেয়নি তাঁদের। গন্তব্যস্থল থেকে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার আগে আটক করা হয় সোনু ও তাঁর বন্ধুবান্ধবদের। সোনু বলেন, “বাড়িতে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে তাই যাচ্ছিলাম। যদিও করোনা সংক্রমণের আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে একেবারে ছোট করেই বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। কিন্তু পুলিশ আমাকে বাড়ি পৌঁছতে দিল না। আপাতত আগামী ১৪ দিন পর্যবেক্ষণে থাকবেন তাঁরা।
First published: April 19, 2020, 2:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर