এ বছর বড়দিনে বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে বাজবে ঘন্টা-বাসন! তৈরি হচ্ছে ব্রিটেনবাসী

Representative Image.

সংক্রমণের জেরে আশপাশের মানুষরাও আইসোলেশনে। এই পরিস্থিতিতে একে অন্যের পাশে থাকার বার্তা দিতে দুই মিনিটের জন্য নিজেদের বাড়ির দরজার সামনে দাঁড়িয়ে ঘন্টা বাজাবেন ব্রিটেনের বাসিন্দারা।

  • Share this:

#ব্রিটেন: এখনও পিছু ছাড়েনি করোনা (Coronavirus)। এ দিকে সামনেই বড়দিনের উৎসব। অভিশপ্ত ২০২০-কে তাড়াতাড়ি বিদায় দিয়ে ২০২১-কে স্বাগত জানাতেও প্রস্তুতি নিচ্ছেন মানুষজন। আর এই উৎসবের মরশুমে ব্রিটেনের হাজার হাজার মানুষ এক নতুন সংকল্পে ব্রতী হতে চলেছেন। সংকল্প, করোনা-জর্জরিত এই কঠিন সময়ে একে অন্যের পাশে দাঁড়ানোর। এই কঠিন পরিস্থিতিতে সংক্রমণের জেরে যাঁরা বিচ্ছিন্ন হয়ে আছেন, তাঁদের মনোবল বাড়ানো। একে অন্যের পাশে দাঁড়ানোর এই বার্তা দিতে এ বারের ক্রিসমাসে তাই নিজেদের দরজার সামনে দাঁড়িয়ে ঘন্টা আর সসপ্যান বাজাবেন ব্রিটেনের বাসিন্দারা।

বড়দিনের মরশুমে ব্রিটেনের পথ-ঘাট, ঘর-বাড়ি সব আলোয় সেজে উঠেছে। সংক্রমণের আতঙ্কের মাঝে ভালো কিছুর আশায় বুক বেঁধেছেন মানুষজন। পুরো একটা বছর জুড়ে করোনা প্রিয়জনদের প্রাণ কেড়েছে। এখনও সংক্রমিত বহু মানুষ। সংক্রমণের জেরে আশপাশের মানুষরাও আইসোলেশনে। এই পরিস্থিতিতে একে অন্যের পাশে থাকার বার্তা দিতে দুই মিনিটের জন্য নিজেদের বাড়ির দরজার সামনে দাঁড়িয়ে ঘন্টা বাজাবেন ব্রিটেনের বাসিন্দারা। শুধু ঘন্টা নয়, প্রয়োজনে রান্নাঘরের সসপ্যান বা ওই জাতীয় কোনও সরঞ্জাম ব্যবহার করেও ঘন্টার মতো শব্দ করবেন তাঁরা। তার পর দরজায় দাঁড়িয়ে থেকেই আশেপাশের বন্ধু, বান্ধব, প্রতিবেশী, আত্মীয়-স্বজনদের ডাকবেন। এই পুরো অনুষ্ঠানের নাম দেওয়া হয়েছে ক্রিসমাস ইভ জিংগল ২০২০। ২৫ ডিসেম্বর স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ছ'টায় অনুষ্ঠিত হবে ব্রিটেনবাসীর এই কর্মসূচি।

আরও পড়ুনযৌনাঙ্গে ক্যান্সার আক্রান্ত বলে মিথ্যে প্রচার, টাকা আদায়! জেল হল এই মহিলার, চিনুন...

এই অভিযানের সূত্রপাত নর্থ ইয়র্কশায়ারের হ্যারোগেটের বাসিন্দা মেরি বেগস রেইডের হাতে। একে অন্যের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে এই বছরকে বিদায় জানানোর জন্য ফেসবুকে (Facebook) একটি পোস্ট করেছিলেন তিনি। এর পর এই অনলাইন ক্যাম্পেইন শুরু হয়। যেখানে ৪,৪৫,০০০-এর বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করেন। পরের দিকে এই অনলাইন ইভেন্টটিকে সাধুবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন (Boris Johnson) ও অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ক্যারি সিমন্ডস (Carrie Symonds)।

ইতিমধ্যে এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার কথাও ছিল মেরি বেগস রেইডের। কিন্তু বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি ফের জটিল হওয়ায় একাধিক বিধি-নিষেধ জারি হয়েছে। এর জেরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার বিষয়টি স্থগিত রাখা হয়েছে। তবে এই অভিযান সম্পর্কিত বিষয়ে একটি ভিডিও মিটিংয়ে অংশ নেবেন বেগস।

এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হলে বেগস রেইড জানান, দেশ জুড়ে অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতি। তবে ক্রিসমাস ইভ জিংগল ২০২০ আমাদের জীবনের একটি আনন্দের ও স্মরণীয় মুহূর্ত হতে চলেছে। আর আমাদের এই পাশে থাকার মুহূর্তকে কোভিডও কেড়ে নিতে পারবে না। এই বছর ক্রিসমাস স্পিরিট অত্যন্ত জরুরি। অন্তত দু'মিনিটের জন্য কাউকে একা থাকতে বা একাকিত্ব অনুভব করতে দেওয়া যাবে না। এটাই এই অভিযানের লক্ষ্য!

Published by:Pooja Basu
First published: