করোনার প্রভাবে সিকিমে "না" বিদেশী পর্যটকদের, বড়সড় ক্ষতির মুখে পর্যটন শিল্প

করোনার প্রভাবে সিকিমে

নাথুলা সীমান্তেও পর্যটকদের পারমিট বন্ধ। বাতিল হচ্ছে সিকিমের বুকিং ৷ ক্ষতির মুখে পর্যটন শিল্প ৷

  • Share this:

Partha Sarkar

#সিকিম: করোনা ভাইরাসের প্রভাব এসে পড়ল পর্যটন শিল্পেও। আজ থেকে সিকিমে বিদেশী পর্যটকদের ঘোরার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করল প্রশাসন। এমনকী ভুটানের পর্যটকদের ক্ষেত্রেও সিকিমে "না"। যেভাবে করোনা ভাইরাস দেশে ছড়াচ্ছে, তার জেরেই এই সিদ্ধান্ত সিকিম সরকারের। পাশাপাশি যাঁরা বেড়াতে যাবেন সিকিমে, সেইসব পর্যটকদের ভারত-চীন সীমান্ত লাগোয়া নাথুলায় যাওয়ার জন্যও পারমিট বন্ধ করে দিয়েছে সিকিম সরকার।

আজ থেকেই নির্দেশিকা কার্যকরী হচ্ছে। অর্থাৎ সিকিমে থেকেও সব পর্যটন কেন্দ্রে যেতে পারবেন না পর্যটকেরা। এর প্রভাবে বড়সড় ক্ষতির মুখে পর্যটন শিল্প। একেই করোনার জেরে ভিন দেশে বেড়াতে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন ভারতীয় পর্যটকেরা। এর উপর সিকিম সরকারের সিদ্ধান্তে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার মুখে পর্যটন ব্যবসায়ীরা। পর্যটন ব্যবসায়ী তন্ময় গোস্বামী জানান, ‘‘বিভিন্ন রাজ্যের পর্যটকদের ওপর এর কী প্রভাব পড়ে, সেদিকেই এখন নজর রাখতে হবে। সিকিমের সিদ্ধান্তের জেরে আতঙ্ক ছড়াবেই দেশীয় পর্যটকদের মধ্যে।’’

সামনেই হোলি। এই সময়ে পর্যটকেরা সিকিমে আসার লম্বা লাইন দিয়েছেন। ভালো বুকিং রয়েছে। তা এবারে ধাক্কা খাবে। ইতিমধ্যেই বুকিং বাতিলের ফোন আসছে। সার্কের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর পর্যটকদের বিদেশী হিসেবে দেখত না সিকিম। কিন্তু এবারে ভুটানের পর্যটকদেরও সিকিমে বেড়ানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দেশীয় পর্যটকেরা আতঙ্কিত হলে পর্যটন ব্যবসায় প্রভাব পড়বে। দুশ্চিন্তায় পর্যটন ব্যবসায়ীরা। হিমালয়ান হসপিটালিটি এণ্ড ট্যুরিজম ডেভলোপমেন্ট নেটওয়ার্কের সাধারন সম্পাদক সম্রাট সান্যাল জানান, ‘‘বড় ক্ষতির মুখে দাঁড়িয়ে পর্যটন শিল্প। আমরা দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে এই আশা করছি। গোটা পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি। যাতে অযথা আতঙ্ক না ছড়ায়। চিনের পর নেপালেও করোনার জীবাণু মেলে। ইন্দো-নেপাল সীমান্তেও স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির চালু করা হয়েছে। বর্তমানে দেশেও বাড়ছে করোনা আতঙ্কের সংখ্যা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকও দেশজুড়ে কড়া নির্দেশিকা জারি করেছে। বিভিন্ন বিমান বন্দরে হেলথ স্ক্রিনিং ক্যাম্প খোলা হয়েছে। পর্যটনে করোনার প্রভাব পড়ায় এই শিল্পের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতরা উদ্বিগ্ন।

First published: March 5, 2020, 4:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर